1. abubakarpressjp@gmail.com : Md Abu bakar : Md Abubakar bakar
  2. sharuarpress@gmail.com : admin520 : Md Gulam sharuar
  3. : alamin328 :
  4. jewela471@gmail.com : Jewel Ahmed : Jewel Ahmed
  5. ajkershodesh@gmail.com : Mdg sharuar : Mdg sharuar
বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০:৩২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
দুরারোগ্য ব্যাধিতে আক্রান্ত জগন্নাথপুরের হাবিবুর, সাহায্যের আবেদন রবার্ট স্টিফেনসন স্মিথ লর্ড ব্যাডেন পাওয়েলর ১৬৭ তম জন্মবার্ষিক উদযাপন উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত কোম্পানীগঞ্জে মায়ের দুধের উপকারিতা বিষয়ে অবহিতকরণ সভা সুনামগঞ্জে লর্ড ব্যাডেন পাওয়েল’র ১৬৭ তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন ইয়ুথ লিডারশীপ অ্যাওয়ার্ড এবং সেমিনারে অংশ নিতে ভারত-মালদ্বীপ যাচ্ছেন তুহিন জগন্নাথপুরে মুক্ত সমাজ কল্যাণ সংস্থার শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ বাংলাদেশের বাজারে আসছে ‘লং-লাস্টিং ভ্যালু কিং’ রিয়েলমি নোট ৫০ জগন্নাথপুর টেলিভিশন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ কানাইঘাটে সংবাদ সম্মেলনে আলমগীর হত্যাকারীদের গ্রেফতার করা না হলে পরিবহন ধর্মঘটের হুমকি শান্তিগঞ্জে সড়ক নির্মানে ইউপি চেয়ারম্যানের ভূমিদান, ৭০ বছরের দুর্ভোগ লাঘব

ভয়ঙ্কর খুন, অর্থ লোভ কেড়ে নিলো সাগরের তাজা প্রাণ

  • আপডেটের সময় : শনিবার, ৭ এপ্রিল, ২০১৮
  • ৮৭১ বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে

আজকের স্বদেশ ডেস্ক::

কোনো হৃদয়-ঘটিত বিষয় না। নিহত সাগরের ও আহত সজিব কোনো অপরাধ করেননি। ঘাতকদের অর্থ লোভেই কেড়ে নিলো কলেজ ছাত্র সাগরের তাজা প্রাণ।

সাগর ও সজিবকে খুন নয় বরং অস্ত্রের মুখে আটকে রেখে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে পরিবারের কাছ থেকে অর্থ আদায় করাই ছিল কিলারদের মূল উদ্দেশ্য। বিধিবাম! ঘুমের ওষুধ খাওয়ানোর পরও ঘুমায়নি সাগর ও সজিব। তাই চিরতরে ঘুমিয়ে দেয়ার জন্যই সাগর ও সজিবকে গুলি করে। সাগরকে লক্ষ্য করে গুলি করতে পিস্তলের টিগার চাপলেও সাড়া দেয়নি পিস্তল। যান্ত্রিক ত্রুটিতে পিস্তলের গুলির আঘাত থেকে বেঁচে যায় সাগর। কিন্তু তাকে যে চিরতরে ঘুমাতে হবেই সেই লক্ষ্য থেকে পিছু হটেনি ঘাতকরা। অবশেষে গলা কেটে হত্যা নিশ্চিত করে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান তারা।

কুমিল্লার রেইস কোর্সের একটি ছাত্রবাসে কলেজ ছাত্র সাগরকে গলা কেটে হত্যা ও অপর ছাত্র সজিবকে গুলি করে আহত করার মাত্র ৪৮ ঘন্টার মধ্যেই ঢাকা থেকে প্রধান আসামিকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে কুমিল্লা জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার সক্রিয় সদস্যরা।

আজ শনিবার সকাল ১১টায় কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার শাহ্ মো. আবিদ হোসেন সাংবাদিক সম্মেলনে জানান ঘটনার বিস্তারিত বর্ণনা। জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে ঘাতকের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে ঘটনার বর্ণনায় দেওয়া হয় প্রেস রিলিজ।

পুলিশ জানান, সোহাগ উদ্দিন রানা (৩০) ও নাসির উদ্দিন (২৮) নামে দুই ঘাতক এ হত্যাকাণ্ডের মূল নায়ক। শুক্রবার রাজধানীর ঢাকা থেকে ঘাতক সোহাগ উদ্দিন রানাকে আটক করেছেন কুমিল্লা জেলা গোয়েন্দা শাখা উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাহ্ কামাল আকন্দ, (এসআই) সহিদুল ইসলামসহ একটি সক্রিয় দল।

ঘাতক সোহাগ উদ্দিন রানা কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ জেলার বাতাবাড়িয়া গ্রামের সেলিম জাহাঙ্গীরের ছেলে। সোহাগ উদ্দিন রানা স্টুডেন্ট ভিসায় মালয়েশিয়া যাওয়ার পর পুলিশ তাকে আটক করে। সেখানে দেড় মাস কারাগারে ছিলেন তিনি। মালয়েশিয়া থেকে দক্ষিণ আফ্রিকা যাওয়ার জন্য দালালের শরণাপন্ন হন রানা। দক্ষিণ আফ্রিকা যেতে আবারো ৬ লাখ টাকার প্রয়োজন হওয়ায় সেই টাকা দিতে অস্বীকার করে তার পরিবার। পথ বেছে নেন জালিয়াতির। এলাকার সহজ-সরল চারজনকে বেছে মালয়েশিয়া নেয়ার প্রলোভন দিয়ে পরিবারের মাধ্যমে ৮ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে নিজে দক্ষিণ আফ্রিকা যাওয়ার জন্য ৬ লাখ টাকা জমা দেন। আর দালাল আত্মসাৎ করে তার ৬ লাখ টাকা। পরিবারকে না জানিয়ে মালয়েশিয়া থেকে দেশে আসেন সোহাগ উদ্দিন রানা।

জাল বুনতে থাকেন অপরাধের। পরিকল্পনা নেন শিক্ষার্থীদের পণবন্দি করে পরিবারের কাছ থেকে মুক্তিপণ আদায় করবেন। সেই জন্য প্রয়োজন এক সহযোগি ও একটি আগ্নেয়াস্ত্র। সহযোগি হিসেবে নেন নাছির উদ্দিনকে। আর ৭৫ হাজার টাকায় কিনেন অবৈধ পিস্তল। দু’জন পরিকল্পনা করেন টার্গেট নেন রেইসকোর্স এলাকার চিন্ময় ভৌমিকের বি, এইচ ভূইয়া হাউজের ছাত্রবাসকে।

যে পরিকল্পনা সেই কাজ। পরিকল্পনা অনুযায়ী ওই ছাত্রবাসের নিচতলা ভাড়া নেন তারা। মাত্র কয়েক দিনের মধ্যেই ছাত্রাবাসের ছাত্রদের মাঝে বন্ধুত্ব গড়ে তোলেন। খোঁজ নিতে থাকেন কোন ছাত্রদের পরিবার কতটা স্বচ্ছল। এরই মধ্যে সাগর ও সজিবকে লক্ষ্য করে সাজিয়ে নেন তাদের প্রধান পরিকল্পনা।

প্রথমে সাগর ও সজিব মেয়েদের সাথে শারীরিক সম্পর্ক করেছে- এমন ফাঁদ পেতে ব্ল্যাকমেইল করে মঙ্গলবার রাতে তাদেরকে বেঁধে ফেলে একটি কক্ষে। তাদেরকে কয়েক দিন একটি কক্ষে আটক করে রাখতে খাওয়ানো হয় ঘুমের ওষুধ। কিন্তু তাতেও তারা না ঘুমানোর কারণে মুখে টেপ বেঁধে চালানো হয় তাদের উপর শারীরিক নির্যাতন। রাত গড়িয়ে ভোর হতে না হতেই কৌশলে হাত-পায়ের বাঁধ খুলে চিৎকার দেন সাগর। বিষয়টি জানাজানি হয়ে যাওয়ার ভয়ে তাদেরকে মেরে ফেলার তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্ত নেয় ঘাতক চক্র। প্রথমে সজিবকে গুলি করে তারা। তবে সাগরকে গুলি করার সময় পিস্তলের টিগার আটকে যায়। তড়িঘড়ি করে সাগরকে গলা কেটে হত্যা নিশ্চিত করে পালিয়ে যান ঘাতকরা। কিন্তু ছুরির আঘাতে সাগরের মৃত্যু নিশ্চিত হলেও বুলেটের আঘাত ভাগ্যক্রমে বেঁচে যান সজিব।
ঘাতকরা তাদেরকে ফেলে দ্রুত পালিয়ে গেলে বুকে গুলি নিয়ে আশপাশের লোকজনদের জাগিয়ে তোলার চেষ্টা করে আহত সজিব।

বুধবার ভোরে কুমিল্লা মহানগরীর রেইসকোর্স এলাকার চিন্ময় ভৌমিকের বি, এইচ ভূইয়া হাউজের ছাত্রবাস থেকে গলাকাটা অবস্থায় কুমিল্লা সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র সাগর দত্তের (১৭) লাশ এবং গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তার বন্ধু সজিব সাহাকে উদ্ধার করে কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশ। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি পিস্তল, ছুড়ি, রশি, ট্যাপ ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় নিহত সাগর দত্তের বাবা শংকর দত্ত দু’জনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা দায়ের করেন।

 

 

আজকের স্বদেশ/জুয়েল

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ধরনের আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2022 আজকের স্বদেশ
Design and developed By: Syl Service BD