Logo

October 15, 2019, 2:12 am

সংবাদ শিরোনাম :
«» দিরাইয়ে শিশু তুহিন হত্যার ঘটনায় পরিবারের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে – সহকারী পুলিশ সুপার «» সাড়ে তিন কোটি টাকার পাথর লুঠের মামলায় আলোচিত ব্যবসায়ী মাতাই জেল হাজতে «» বাঘায় ২ সতীতের ভোটযুদ্ধ «» ‘জিনের’ হাত থেকে উদ্ধার সেই কিশোরী ফিরে গেল পরিবারে «» কানাইঘাট আইন শৃংখলা ও চোরাচালান প্রতিরোধ কমিটির সভা অনুষ্ঠিত «» জগন্নাথপুরে বহুল প্রতিক্ষিত মিরপুর ইউনিয়ন নির্বাচন সম্পন্ন: আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী শেরীন বিশাল ব্যবধানে জয়ী «» রৌয়াইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এ বৃক্ষ রোপন «» আবরারের হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতের আশ্বাস «» জগন্নাথপুরের মিরপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ২নং ওয়ার্ডে মাহবুব হোসেন বিজয়ী «» ঘুষের টাকাসহ ধরা পড়লেন পাসপোর্ট অফিসের সহায়ক

বিয়ের ৫ দিন পর স্ত্রীর হাতে স্বামী খুন

আজকের স্বদেশ ডেস্ক::

সিরাজগঞ্জের সলঙ্গায় বিয়ের পাঁচদিন পর নববধু ও তার প্রেমিকের মারপিটে আহত আব্দুল মজিদ (২১) নামে এক যুবক চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। এ ঘটনায় নববধু আল্পনা খাতুনকে (১৮) আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার ভোর রাতে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

এর আগে ২৪ মার্চ রাতে সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলার সলঙ্গা থানার হাট চৌবিলা গ্রামে এ মারপিটের ঘটনা ঘটে। নিহত মজিদ ওই হাট চৌবিলা গ্রামের মৃত আবু হানিফের ছেলে।

সলঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ ওহেদুজ্জামান জানান, শুক্রবার হাট চৌবিলা গ্রামের মৃত আবু হানিফের ছেলে আব্দুল মজিদের সাথে চৌবিলা চকপাড়া গ্রামের আমজাদ হোসেনের মেয়ে আল্পনা খাতুনের বিয়ে হয়। বিয়ের পরদিন শনিবার নববধুসহ শশুড়বাড়ীতে যান মজিদ। ওইদিন রাতে নববধূ আল্পনা ও তার প্রেমিক পরিকল্পিতভাবে মজিদকে ঘর থেকে বের করে নিয়ে যায়। পরদিন সকালে একটি বাঁশঝাড়ের পাশে মজিদকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয়রা। পরে তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

ওসি আরও বলেন, নিহতের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত ও জখম রয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে তাকে পিটিয়ে জখম করা হয়েছে। বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে নিহতের মরদেহ সলঙ্গায় আনার প্রক্রিয়া চলছে। এদিকে তার মৃত্যুর পর বৃহস্পতিবার সকালেই নববধূ আল্পনাকে আটক করে থানা হেফাজতে এনে জিজ্ঞসাবাদ করা হচ্ছে। এ ঘটনায় হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে।

 

আজকের স্বদেশ/ফখরুল