1. abubakarpressjp@gmail.com : Md Abu bakar : Md Abubakar bakar
  2. sharuarpress@gmail.com : admin520 : Md Gulam sharuar
  3. : alamin328 :
  4. jewela471@gmail.com : Jewel Ahmed : Jewel Ahmed
  5. ajkershodesh@gmail.com : Mdg sharuar : Mdg sharuar
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ১১:০৪ অপরাহ্ন
হেড লাইন
জগন্নাথপুরে ভারী যানবাহন চলাচলে বেহাল জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন-২০২৪ প্রতীক পেলেন শান্তিগঞ্জ উপজেলার প্রার্থীরা ওয়ার্ল্ড ভিশননের বাষির্ক কার্যক্রম মূল্যায়ন ও উন্নয়ন পরিকল্পনা জগন্নাথপুরে সামাজিক ও মানবতার সংগঠন “রানীগঞ্জ উন্নয়ন সংস্থা” এর শুভ উদ্বোধন চতুলবাসীর ভালোবাসার প্রতিদান দিতে চাই চেয়ারম্যান প্রার্থী শামসুজ্জামান বাহার বাংলাদেশ পরিবেশ পরিক্রমা মানবাধিকার সাংবাদিক সোসাইটির সিলেট বিভাগীয় কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত সাতগাঁও বাজারের নির্বাচনী সভায় দিলীপ বর্মন : সন্ত্রাসমুক্ত সম্প্রীতিময় বিশ্বম্ভরপুর গঠনে ঘোড়া মার্কায় ভোট দিন হীড বাংলাদেশের আয়োজনে যক্ষা রোগ সম্পর্কে সচেতনতায় নবীগঞ্জে বাস-সিএনজি সংঘর্ষে জগন্নাথপুরের মহিলা নিহত কমলগঞ্জ উপজেলায় এই প্রথম নারী চেয়ারম্যান প্রার্থী গীতা রানীকানু

সুনামগঞ্জে আগুনে সাতটি ঘর, গরু ও গোলার ধান পুড়ে ছাই ৪০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি

  • Update Time : রবিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২৪
  • ৬০ শেয়ার হয়েছে

বিশেষ প্রতিনিধিঃ
সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার রঙ্গারচর ইউনিয়নের রঙ্গারচর গ্রামে শুক্রবার গভীর রাতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড৷ সাতটি ঘর ও গোয়ালের তিনটি গরু ও ঘরে থাকা ধান, আসবাব পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এতে চারজন কৃষক নিঃস্ব হয়েছেন। তাদের ৪০ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে স্থানীয় লোকজন জানিয়েছেন।
খবর পেয়ে সুনামগঞ্জ শহর থেকে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন গেলেও সুরমা নদীর কারণে তাদের গাড়িটি আর ঘটনাস্থলে যেতে পারেনি। তবে কর্মীরা সেখানে গিয়ে স্থানীয় লোকজনকে আগুন নেভাতে সহযোগিতা করেছেন। স্থানীয় লোকজন নিজেরা চারটি পাম্প লাগিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন।
স্থানীয় বাসিন্দাদের সূত্রে জানা গেছে, রঙ্গারচর গ্রামের আবদুল হামিদের গোয়ালঘর লাগোয়া খড়ের গাদায় গাদা থেকে রাত সাড়ের ১২টার দিকে প্রথমে আগুন লাগে বলে স্থানীয় লোকজনের ধারণা। এরপর একে একে আবদুল হামিদের গোয়ালঘর, আবদুল কালাম ও আবদুল কাদিরের বসতঘর ও গোয়ালঘরে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। প্রতিটি গোয়াঘরের পাশেই খড়ের গাদা থাকায় আগুন দ্রুত ছড়ায়। এতে বসতঘর, ঘরে থাকা আসবাব, গোলার ধান, নগদ টাকা সবই পুড়ে ছাই যায়। এসব ঘরের লোকজন কোনো বকমে নারী শিশুদের নিয়ে প্রাণ নিয়ে বের হন।

আবদুল হামিদ বলেন, তার পুরো ঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। দুটি গরু অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা গেছে। আরও দুটোর অবস্থা খারাপ।  গোলার ধান পুড়েছ ৫০মণের মতো। ঘরে কিছু নগদ টাকা ছিল সেগুলো বের করতে পারেননি। আবদুর রহমানের একইভাবে ঘর, গোলার ধান, সব আসবাব, একটি গুরু পুড়েছে।

আবদুল কাদির বলেন, ঘরের কোনো জিনিস বের করতে পারছি না। সব শেষ অইগিছে। এক কাপড়ে জান নিয়া বের অইছি। আগুনে আমরারে পথ নামাইদিছে।

গ্রামের বাসিন্দা আবদুল কুদ্দুস বলেন, চারটি পরিবার একেবারে পথে বসে গেছে। ঘর, গোলার ধান, গোয়ালের গরু সবই শেষ। খড়ের গাদায় গভীর রাতে কিভাবে আগুন লাগল সেটাই বুঝতে পারছি না।

আবদুল আলীম বলেন, আমরা ফায়ার সার্ভিসকে বলেছিলাম। কিন্তু সুরমা নদীর কারণে তাঁরা সময়মতো ঘটনাস্থলে আসতে পারেননি। তবে শেষ পর্যায়ে এসে তাঁরা স্থানীয়দের সহযোগিতা করেছেন। রাত তিনটার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। চারটি পাম্প দিয়ে লোকজন পানি দিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করেন ।

খবর পেয়ে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খালেদ চৌধুরী শনিবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তিনি বলেন, আমরা ক্ষয়ক্ষতি দেখে গেলাম। ক্ষতিগ্রস্তদের সঙ্গ কথা বলেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2024
Design and developed By: Syl Service BD