1. abubakarpressjp@gmail.com : Md Abu bakar : Md Abubakar bakar
  2. sharuarpress@gmail.com : admin520 : Md Gulam sharuar
  3. : alamin328 :
  4. jewela471@gmail.com : Jewel Ahmed : Jewel Ahmed
  5. ksr.france@gmail.com : kawsar Mihir : kawsar Mihir
  6. ajkershodesh@gmail.com : Mdg sharuar : Mdg sharuar
সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ০৯:৩৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
হবিগঞ্জ জেলা পুলিশের শ্রেষ্ঠ এএসআই (সহকারী উপ-পরিদর্শক) নির্বাচিত হলেন লোকেশ দাশ সুনামগঞ্জে খাদ্য সামগ্রী বিতরন কানাইঘাটে মুখোশধারীদের হামলায় কলেজ শিক্ষার্থী আহত আন্দোলন-সংগ্রামের সাক্ষী জগন্নাথপুর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার অবহেলায় নষ্ট হচ্ছে গোয়াইনঘাটের আলোচিত আব্দুল কাদির হত্যা মামলার আসামী শুকুর কানাইঘাটে গ্রেফতার Best Dating Sites For Over 55 Mature Singles Dating Sites বাঁচতে চায় তানিয়া, আর্থিক সাহায্যের আবেদন হবিগঞ্জ জেলার শ্রেষ্ঠ পুলিশ অফিসার এএসআই সিবলু মজুমদার সুনামগঞ্জের এক গৃহবধূ ৪দিন ধরে নিখোঁজ : জিডি জ্বালানী তেলের দাম অতিমাত্রায় বৃদ্ধির কারণে জগন্নাথপুরের গ্রাহকদের মাঝে ক্ষোভ

মরণব্যধি মাদকের নেশায় জর্জরিত শেরপুর: ধ্বংসের পথে যুব সমাজ

  • আপডেটের সময় : শনিবার, ২৬ মে, ২০১৮
  • ৩০২ বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে
সামাদ আজাদঃ
মরণব্যধি মাদকের নেশায় জর্জরিত মৌলভীবাজার সদর উপজেলার হাইওয়ে থানা শেরপুর। ভারত ও দেশের অভ্যন্তরে বিভিন্ন স্থান থেকে স্রোতের মতো আসা মাদকের জাল এখন শেরপুরের সর্বত্র।
শহর থেকে গ্রাম সবখানেই মাদকের ভয়ঙ্কর ছোবল। সময় যতো গড়াচ্ছে, মাদকের জাল ততোই যেন বিস্তৃত হচ্ছে। বখে যাওয়া যুবসমাজ থেকে শুরু করে শিক্ষার্থী-অভিজাত শ্রেণীর অনেকেও মাদকের নেশায় জড়িয়ে পড়ছে।
শেরপুর তিনটি জেলার মিলনস্হল।  ফলে প্রতিবেশী জেলা শহর  থেকে বানের জলের মতো বিভিন্ন ধরনের মাদক ঢুকে শেরপুরে। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সিলেটের কোম্পানিগঞ্জ, জৈন্তাপুর ও গোয়াইনঘাট সীমান্ত দিয়ে অফিসার্স চয়েস মদ, বিয়ার, হুইস্কিসহ বিভিন্ন ধরনের মদ ভারত থেকে অবৈধভাবে নিয়ে আসে মাদকচক্র।
জকিগঞ্জ ও কানাইঘাট সীমান্ত দিয়ে ঢুকে ফেনসিডিল। এছাড়া ঢাকা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও কুমিল্লা থেকে বাস ও ট্রেনে সহ বিভিন্ন বাহকের মাধ্যমে শেরপুরে  আসে হেরোইন, চট্টগ্রাম থেকে আসে ইয়াবা।
সীমান্ত এলাকা দিয়ে যেসব মাদক আসে, তার সাথে বড় বড় মাদক ব্যবসায়ীরা জড়িত। বিভিন্ন সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানে মাদকের কতিপয় বাহক ধরা পড়লেও মূলহোতারা থেকে যায় ধরাছোঁয়ার বাইরে। আড়ালে থেকেই কলকাঠি নেড়ে মাদকের জাল সর্বত্র ছড়িয়ে দিচ্ছে তারা।
জানা যায়, শেরপুরে  মাদকবিক্রির সবচেয়ে এলাকা হচ্ছে  মিশিন হাটি,অক্সিরোডের   নাথ বাড়ি, আাইনপুর সড়কের মুখে বিভিন্ন ভূসিমালের দোখানে,সরকার বাজার এলাকা।আর এ সব এলাকায় মাদকদ্রব্য ব্যবসার নিয়ন্ত্রণ  করে ইছমত,গিয়াস মিয়া,বিদুৎনাথ,সাহেব আলী ছাবিরমিয়া।,
সূত্র জানায়, শেরপুরে বর্তমানে অভিনব পন্থায় মাদক বিক্রি করা হচ্ছে। সবজিবিক্রেতা, মাছবিক্রেতা, ফলবিক্রেতা সেজে একেবারে ঘর পর্যন্ত মাদক পৌঁছে দিচ্ছে ব্যবসায়ীরা। একসময় বখে যাওয়া যুবসমাজই ছিল মাদকের প্রধান সেবনকারী। কিন্তু বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয় পড়–য়া ছাত্র-ছাত্রী, অভিজাত পাড়ার সন্তানরা মাদকের ছোবলে আক্রান্ত।। তব
সংশ্লিষ্টরা বলছেন, মাদকের বিরুদ্ধে এখনই সর্বাত্মক পদক্ষেপ গ্রহণ করা না হলে গোটা শেরপুর মাদকে ভাসতে থাকবে। মাদকের কালো থাবায় ধ্বংস হয়ে যাবে সম্ভাবনাময় প্রজন্ম।
এ ব্যাপারে  পুলিশ সংশ্লিষ্টরা  বলেন, ‘মাদকের বিরুদ্ধে পুলিশ জিরো টলারেন্সে রয়েছে। ফলে পুলিশের অভিযানে প্রত্যন্ত  এলাকায়ও মাদকের বড় বড় চালান ধরা পড়ছে।’ মাদক নির্মূলে পুলিশের পাশাপাশি সাধারণ মানুষকেও এগিয়ে আসার আহ্বান জানান সংশ্লিষ্টরা ।

আজকের স্বদেশ/জুয়েল

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরনের আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2022 আজকের স্বদেশ
Design and developed By: Syl Service BD