1. abubakarpressjp@gmail.com : Md Abu bakar : Md Abubakar bakar
  2. sharuarpress@gmail.com : admin520 : Md Gulam sharuar
  3. : alamin328 :
  4. jewela471@gmail.com : Jewel Ahmed : Jewel Ahmed
  5. ksr.france@gmail.com : kawsar Mihir : kawsar Mihir
  6. ajkershodesh@gmail.com : Mdg sharuar : Mdg sharuar
শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৬:০৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
কানাইঘাটে সোস্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটি নিউ ইয়র্কের নগদ অর্থ বিতরণ যেভাবে এক বছরে অর্ধেক সম্পত্তি খোয়ালেন বিশ্বের শীর্ষ ধনী নারী সিলেটের বিদায়ী পুলিশ সুপারকে কানাইঘাট প্রেসক্লাবের সংবর্ধনা প্রদান খেলাপি ঋণে রেকর্ড, এক বছরে বেড়েছে ২৬ হাজার কোটি টাকা কানাইঘাটে ওয়েভ ফাউন্ডেশনের এডভোকেসি নেটওয়ার্ক গঠন সভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে কলেজ শিক্ষার্থীদের নিয়ে ওরিয়েন্টেশন ক্লাস অনুষ্ঠিত কানাইঘাটে পুষ্টি সমন্বয় কমিটির সভা অনুষ্ঠিত দ্রব্যমূল্য উর্ধ্বগতির প্রতিবাদে জগন্নাথপুরে জাতীয় পার্টির প্রতিবাদ সভা বিদেশে যেতে ডলার বহনে নিরুৎসাহিত করছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক যুক্তরাজ্য প্রবাসী আবু রায়হানের উদ্যোগে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মধ্যে ত্রান সামগ্রী বিতরণ

পাপ থেকে আত্মরক্ষার ঢাল রোজা

  • আপডেটের সময় : শনিবার, ১৯ মে, ২০১৮
  • ২৮৪ বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে

স্বদেশ ডেস্ক::

ক্বাদ আফলাহা মান জাক্কাহা, আল্লাহ বলেন, ‘নিশ্চয়ই সে ব্যক্তিই কল্যাণ লাভ করেছে যে আত্মাকে বিশুদ্ধ করেছে। ওয়াক্বাদ খাবা মান দাসসাহা, আর যে আত্মাকে কলুষিত করেছে সে ব্যর্থ হয়েছে।

যুগে যুগে নবী রাসূল অলি আউলিয়াগণের আগমনের কারণই হল মানুষের আত্মাকে জাগ্রত বা বিশুদ্ধ করা। আর এই বিশুদ্ধকরণের প্রক্রিয়া হল ইবাদত বন্দেগি জিকির আজকার তাসবিহ তিলাওয়াত ইত্যাদি ধারাবাহিকভাবে আমল করা।

নামাজ রোজা হজ জাকাতকেই আমরা সাধারণত ইবাদত মনে করে থাকি। কিন্তু এসব ইবাদতের হাকিকত কী অর্থাৎ এগুলো কী কারণে আল্লাহ আমাদের ওপর ফরজ করেছেন তা আমরা তলিয়ে দেখি না। নামাজ হল মুমিনের মেরাজ। আসসালাতু মিরাজুল মুমিনিন।

আর রোজা হল পাপ পঙ্কিলতা থেকে আত্মরক্ষার ঢাল স্বরূপ। আসসাওমু জুন্নাতুন। হজ এবং জাকাত মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তি বিকশিত করে। এসব কাজ আল্লাহর নির্দেশে নবীজী (সা.)-এর সুন্নাহ মতো করলেই তা ইবাদতে পরিণত হয়ে বিনিময় পরকালে পুরস্কার পাওয়া যাবে।

রমজান আমাদের এ সবই বলেছে। হজরত উমর থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, রমজান শুরুর একদিন আগে নবীজী (সা.) লোকগণকে জমা করে এই খুতবা দিতেন ‘হে লোকসকল পবিত্র রমজান আসিয়াছে এজন্য পাক সাফ কাপড় পরে কোমর বেঁধে লও তার তাজিম হুরমত কর।’

রমজান সম্পর্কে আল্লাহ বলেন, ‘শাহ্রু রমদানাল্লাজি উন্জিলা ফিহিল কোরআন রমজান এমন এক মাস যে মাসে কোরআন নাজিল করা হয়েছে’। আর কোরআন কী? হুদাল্লিন্নাসি মানুষের হেদায়াত প্রাপ্তির সিলেবাস।

একজন শিক্ষার্থী যতই পড়াশোনা করুক না কেন সিলেবাসবিহীন পাঠে তার যেমন সনদ প্রাপ্তি হয় না তেমনি একজন মুসলিম যতই ইবাদত বন্দেগি করুক না কেন আল্লাহর হুকুম এবং রাসূল (সা.)-এর আদর্শ ছাড়া আল্লাহর রেজামন্দি অর্জন সম্ভব নয়।

রমজানের অন্যতম আমল রোজা থাকা বা সিয়াম সাধনা ফা মান শাহিদা মিনকুম ফালইয়াসুমহু আল্লাহ বলেন, রমজানের নাগাল পেলে সে মাসের দিবসগুলোতে তোমরা রোজা পালন করবে। এর উদ্দেশ্য হল তাকওয়া বা খোদাভীতি অর্জন করা। আল্লাহ মোমিনদের ডেকে বলেন, ‘কুতিবা আলাইকুমুসসিয়ামু তোমাদের ওপর রোজা ফরজ করা হয়েছে, কামা কুতিবা আলাল্লাজিনা মিন কাবলিকুম।

যেমন তোমাদের আগের লোকদের ওপরও ফরজ ছিল লাআল্লাকুম তাত্তাকুন। যেন তোমরা মুত্তাকি বা পরহেজগার হতে পার। কিন্তু রমজান আসে রমজান যায় আমরা কতটুকু মুত্তাকি বা খোদাভীতি অর্জন করতে পেরেছি তা নিজের কাছে প্রশ্ন করলে জবাব পেয়ে যাব।

রোজার মাস এলেই প্রতিটি নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের মূল্য বৃদ্ধি, ইফতার পার্টি, ঈদ উৎসবের জন্য বিভিন্ন সেক্টরে চাঁদা দাবি কী প্রমাণ করে? যে রমজান এসেছে ভোগের লালসাকে জ্বালিয়ে আত্মাকে বিশুদ্ধ করার জন্য যেমন স্বর্ণকার আগুনে জ্বালিয়ে স্বর্ণের খাদ পরিষ্কার করে। রমজানের শাব্দিক অর্থও জ্বালানো। সেই রমজানের রোজা পালন করি ঠিকই কিন্তু আমাদের আত্মা বিশুদ্ধ হয় না কেন?

জবাব হল, আমরা নবীজী (সা.)-এর হাতে-কলমে শেখানো রোজা থেকে যোজন যোজন দূরে অবস্থান করছি। ফলে যা হচ্ছে তা রোজার আনুষ্ঠানিকতা মাত্র। আহলে বাইতের অন্যতম সদস্য মাওলা আলী কা. ইফতার করবেন।

নবী (সা.) দুহিতা জান্নাতের নেত্রী মা ফাতেমা তার ইফতারের জন্য রুটি তৈরি করেছেন। নিজের খাদেমা উম্মে ফাজ্জাসহ পরিবারের সদস্য ৫ জন। পাঁচজনের পাঁচ রুটি। হজরত আলী ইফতার মুখে নেবেন, এমন সময় এক মুসাফির হাঁক ছাড়ে।

তিন দিনের ভুখা আমাকে কি কেউ খাবার দেবেন। মাওলা আলী ছেলে হাসানকে (রা.) ডেকে বলে বাবা যাও আমার রুটিখানা মুসাফিরকে দিয়ে এসো। এই কথা শুনে নবীজীর (সা.) দৌহিত্র হাসান বলে আব্বু আমিও আমার রুটি মুসাফিরকে দিতে চাই। আলী বলেন, মাশাআল্লাহ মানব সেবায় দিতে চাইলে আমি নিষেধ করব কেন? দাও। ছোট ছেলে হোসাইন বলেন, আব্বু আমিও দেব তিনি বলেন দাও।

মা ফাতেমা (রা.) এই দৃশ্য দেখে বলেন, দানের প্রতিযোগিতায় আমি পিছিয়ে থাকব কেন? আমার পিতা তো রহমতের ভাণ্ডার। আমার ভাগেরটা দিয়ে দিলাম। এই কথা শুনে খাদেমা উম্মে ফাজ্জা দৌড়ে এসে তার ভাগের রুটিও মুসাফিরকে দিয়ে বলে, আমি না দিলে লোকে বলবে নবী (সা.)-এর ঘরানার সবাই দানশীল খাদেমা বখিল আমি বখিল হতে চাই না। এই ছিল নবুয়তি শিক্ষায় রোজা পালনের নমুনা।

আর এখন? মাসব্যাপী ইফতার পার্টি হবে প্রকৃত রোজাদার আর জীবনে যাদের হররোজ রোজা এমন ভুখারা দাওয়াত পায় না। সবই লোক দেখানো আনুষ্ঠানিকতা।

রোজার শিক্ষাই ছিল ক্ষুধার্তদের ক্ষুধার তাড়না যেন আমরা অনুভব করি আমরা যেন খোদাভীতি অর্জন করতে পারি। কী কারণে তারা ক্ষুধার্ত এবং সুবিধাবঞ্চিত আমার কোনো সামাজিক দায়িত্বের কারণে যদি এই শ্রণীটি ক্ষুধার তাড়নায় কাতরায় আমি যেন সে ভয়ে আল্লাহর কাছে রোনাজারি করে মাফ চাই আর তাদের খেদমতে লেগে যাই এটাই ছিল রোজার শিক্ষা।

রোজা যেমন তাকওয়া হাসিলের জন্য ফরজ করা হয়েছে এর বাস্তব ট্রেইনিংয়ের জন্য ইনসানে কামেলের সান্নিধ্য জরুরি। আল্লাহ বলেন, ইয়া আইয়্যুহাল্লাজিনা আমানু ইত্তাক্বুল্লাহা হে ঈমানদারেরা তোমরা তাকওয়া অবলম্বন কর। ওয়া কুনু মাআসসাদেক্বীন।

আর তা অর্জনের জন্য সত্যানিৎসু বা ইনসানে কামেলের সাহচার্য অবলম্বন কর। ইনসানে কামেল হলেন আল্লাহর খাস বান্দা যারা ইলমে লাদুন্নির অধিকারী। তারা আল্লাহর আসরার সম্পর্কে সম্যক অবগত। শুধু তাই নয়, তারা রহমত বা দয়ার আঁধার।

কালামে পাকে এই বিষয়ে স্পষ্ট ইঙ্গিত রয়েছে, ‘ফা ওয়াজাদা আবাদাম মিন আবদিনা অতঃপর তারা দু’জন (হজরত মূসা আ. এবং ইউসা বিন নূন আ.) খুঁজে পেল আমার খাস বান্দাদের মধ্য থেকে একজন বিশেষ বান্দাকে। আত্বাইনাহুর রাহ্মাহ মিন ইনদিনা, আমি তাকে আমার পক্ষ থেকে রহমত দান করেছি। ওয়া আল্লামনাহু মিল লাদুন্না ইলমা। আমি তাকে ইলমে লাদুন্নি বা বিশেষ জ্ঞান দান করেছি। আল্লামা ইকবালের ভাষায় ‘বন্দেগানে খাস আল্লামুল গুয়ুব//দর জাহানে জাঁ জাওয়াসেসুল ক্বুলুব (আল্লাহর খাস বান্দাগণ অদৃশ্যের খবর রাখেন তারা দুনিয়ার অভ্যন্তরীণ বিষয়গুলোর গুপ্ত জ্ঞানের পাহারাদার) আমিন।

লেখক : প্রাবন্ধিক

 

 

 

 

 

আজকের স্বদেশ/জুয়েল

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরনের আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2022 আজকের স্বদেশ
Design and developed By: Syl Service BD