1. abubakarpressjp@gmail.com : Md Abu bakar : Md Abubakar bakar
  2. sharuarpress@gmail.com : admin520 : Md Gulam sharuar
  3. : alamin328 :
  4. jewela471@gmail.com : Jewel Ahmed : Jewel Ahmed
  5. ajkershodesh@gmail.com : Mdg sharuar : Mdg sharuar
রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ১০:২০ পূর্বাহ্ন
হেড লাইন
১২৯০ টি ডাস্টবিন বিতরণ করেছে ওয়ার্ল্ডভিশন সুনামগঞ্জে আমির হোসেন রেজার প্রতি অনাস্থা জ্ঞাপন করলেন সুরমা ইউনিয়ন পরিষদের ১১ মেম্বার শান্তিগঞ্জে ব্যবসায়ীর ওপর দুর্বৃত্তের হামলা, টাকা-মোবাইল লুট কোম্পানীগঞ্জে সাংবাদিকদের সাথে নয়া ইউএনও’র মতবিনিময় সভা শান্তিগঞ্জে কোটা সংস্কার আন্দোলন ও হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বমেক কোম্পানীগঞ্জ সীমান্তে খাসিয়ার গুলিতে নিহত ২ বাংলাদেশীর লাশ হস্তান্তর কানাইঘাটে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে যুক্তরাজ্য প্রবাসী ফাহিমের ত্রান বিতরণ লন্ডনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তাহমিনার কৃতিত্ব জগন্নাথপুরে বন্যায় সড়কে বিভিন্ন স্থানে ভাঙ্গন মানুষের ভোগান্তি! সাংবাদিক ওমর ফারুক নাঈমকে হুমকি, থানায় জিডি

বছর ঘুরতেই নষ্ট হচ্ছে ফুটপাতের দামি টাইলস

  • Update Time : শুক্রবার, ৩০ মার্চ, ২০১৮
  • ১৪৮২ শেয়ার হয়েছে

আজকের স্বদেশ ডেস্ক::

প্রায় ২ বছর ধরে রাজধানীতে চলছে ফুটপাত সংস্কারের কাজ। এরমধ্যে কোথাও কোথাও নির্মাণের কয়েক মাসের মধ্যেই ভেঙে গেছে টাইলস। আবার কোথাও ওঠে গেছে। এতে ফুটপাতের কোথাও কোথাও গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। আর কোথাও কোথাও ফুটপাতের পাশ দিয়ে যাওয়া নালার মুখ উন্মুক্ত হয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় প্রায়ই ঘটছে দুর্ঘটনা।

সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, কোথাও কোথাও ফুটপাত আবার মেরামত করা হচ্ছে। আগের ব্যবহার উপযোগী ফুটপাত ভেঙে চলছে সৌন্দর্যবর্ধনের কাজ। অথচ সংস্কারের অভাব আর হকারদের দখলের কারণে কয়েক স্থানে ফের ভেঙেছে ফুটপাত। এতে দিনের পর দিন ভোগান্তি পোহাচ্ছেন পথচারীরা।

বিগত কয়েক বছরে একাধিকবার সংস্কার করা হলেও অনেক বছর ধরে অবহেলায় ভাঙাচোরা অবস্থায় মহাখালী এলাকার ফুটপাত। এসব ফুটপাতে চলাচলের জন্য পর্যাপ্ত জায়গা নেই। ফলে বাধ্য হয়ে পথচারীদের মূল সড়ক দিয়ে হাঁটতে হয়। স্থানীয় বাসিন্দারা বলছেন, এই এলাকার ফুটপাত কিংবা সড়ক এত খারাপ ছিল না যে সেগুলো এখনই ভেঙে এমন করতে হবে।

গত রোববার দুপুরে গুলশান-১ থেকে গুলশান-২ এলাকায় সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, সড়কের দুই পাশের ফুটপাতেই চলছে সংস্কার কাজ, যেগুলো কদিন আগেও ভালো ছিল। কোথাও আগের ফুটপাত ভেঙে ইটপাথর-ঢালাই আশপাশে স্তূপ করা, কোথায় নতুন করে বালু ফেলা হয়েছে কিংবা ঢালাই দেয়া হয়েছে। এগুলোতে এখন বসবে টাইলস।

ভাঙা ফুটপাতজুড়ে বালু জড়ো করা। যেটুকু ফুটপাত আছে তা পথচারীদের জন্য পর্যাপ্ত নয়। কোথাও কোথাও এমন সংকীর্ণ যে দুজন লোক পাশাপাশি হাঁটা যায় না। ফলে চলার পথে মুখোমুখি হলে কোনো একজনকে সড়কে নেমে যেতে হয়। কয়েকজনের সঙ্গে আলাপে জানা গেল, সিমেন্ট ও বালুর সংমিশ্রণে সাদা টাইলসগুলো ফুটপাতে বসানো হয়। বছর ঘুরতেই সিমেন্ট ও বালু সরে খুলে যাচ্ছে অনেক টাইলস। কোথাও পা রাখলে নিচের দিকে দেবেও যাচ্ছে। এলাকায় নিয়মিত অফিস করা লোকজন বলছিলেন, টাইলস বসানো হলেও সংরক্ষণসহ পরবর্তী কার্যক্রম ঠিকভাবে দেখভাল না করার কারণে এই ভগ্নদশা। বেসরকারি কোম্পানির এক নিরাপত্তা কর্মী বলেন, সিটি করপোরেশন গত দুই বছর আগে ফুটপাতে টাইলস বসিয়েছে। এরই মধ্যেই গুলশান ১-২ সড়কের ফুটপাতের অনেক জায়গায় টাইলস ভেঙে গেছে। আবার কিছু ওঠে গেছে। এতে করে মানুষের চলাচলে সমস্যা হয়। আর বাতাস এলে ধুলায় সাদা হয়ে যায় এই এলাকা। সড়ক খোঁড়াখুঁড়ি, ফুটপাত তুলে ফেলায় হাঁটাচলা করতে যেমন ভুগতে হয়েছে, তেমনি হজম করতে হয়েছে ধুলোবালি।

প্রয়াত আনিসুল হক ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র পদে দায়িত্ব নেয়ার পর রাজধানীর অভিজাত এলাকাটির সৌন্দর্যবর্ধনে ‘গুলশান, বনানী ও বারিধারা কূটনৈতিক এলাকার রাস্তা, নর্দমা, ফুটপাত নির্মাণ ও উন্নয়ন’ শীর্ষক প্রকল্পটির কাজ নিয়েছিলেন। ২০১৫ সালে গৃহীত ১৯৯ কোটি ৯৭ লাখ টাকা ব্যয়ের প্রকল্পটির আওতায় এই এলাকার ১০টি ওয়ার্ডের প্রায় ৪০ কিলোমিটার রাস্তা নির্মাণ, প্রায় ৫৬ কিলোমিটার খোলা ড্রেন নির্মাণ, ২৫ কিলোমিটার পাইপ ড্রেন নির্মাণ কাজ চলছে। চলছে ৫৬ দশমিক ৪১৫ কিলোমিটার ফুটপাত নির্মাণ ও উন্নয়ন কাজ। এরই আওতায় বসানো হচ্ছে টাইলস।

এ বিষয়ে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মেসবাহুল ইসলাম বলেন, ‘কিছু স্থানে এখনো সৌন্দর্যবর্ধনের কাজ চলছে। ফলে পথচারীদের আরো কিছুদিন একটু কষ্ট করতে হবে। আমি আশাবাদী, খুব দ্রুতই কাজ শেষ হবে।’ তিনি আরো বলেন, ‘নির্মাণে পর এত দ্রুত ভেঙে যাওয়ার কথা না। সংশ্লিষ্ট কাজে দায়িত্বপ্রাপ্তদের আমি সমস্যাটি খতিয়ে দেখতে বলব।’

 

 

আজকের স্বদেশ/জুয়েল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2024
Design and developed By: Syl Service BD