Logo

May 11, 2021, 11:11 am

সংবাদ শিরোনাম :

সাংবাদিক কর্মী কাওছার আহমেদের উপর সন্ত্রাসী হামলা, সাংবাদিকদের নিন্দা, প্রতিবাদ ও বিচার দাবী

জগন্নাথপুর প্রতিনিদি:- জগন্নাথপুর সাংবাদিক কাওছার আহমেদ  উপর সন্ত্রাসী হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন জগন্নাথপুর  সাংবাদিক নেতারা।

শনিবার রাত ১০টার দিকে জগন্নাথপুর শহর থেকে বাড়ী ফেরার পথে এই হামলার ঘটনা ঘটে। হামলার শিকার সাংবাদিক কাওছার আহমেদ কে গুরুতর অবস্থায় সিলেট রাগিব রাবেয়া হসপিতাল ভর্তি করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শনিবার কর্ম ব্যাস্ততা শেষে মটরবাইক দিয়ে বাড়ী পথে যাচ্ছিলেন সাংবাদিক কাওছার আহমেদ এমন সময় রাস্থায় দেশীয় অস্র নিয়ে উপস্থিত হন ১২/১৪ জন সন্ত্রাসী

প্রথমে তারা মটর সাইকেল তামিয়ে কাওছার আহমেদ কে দাক্কা দিয়ে ফেলে দেয় । এক পর্যায়ে তারা তাকে মারপিট শুরু করে অজ্ঞান অবস্থায় রাস্থার পাশে ফেলে যায়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে জগন্নাথপুর উপজেলা  হাসপাতালে নিয়ে যায়। হাস্পাতাল কর্তিপক্ষ উনাকে সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। পরে উনাকে সিলেট রাগিব রাবেয়া হসপিতাল ভর্তি করা হয়।

 

                  ছবি: প্রতিবাদে জগন্নাথপুর সাংবাদিক কর্মী ও এলাকাবাসি

ঘটনার বিষয়ে কাওছার আহমেদ এর বাবা জনাব আবরু মিয়ার সাথে কথা বলে জানা যায়। কাওছার আহমেদ নানা সময় এলাকার নানা দুর্নীতির বিষয় বস্তু নিয়ে প্রতিবাদ করতেন এবং আওয়ামীলীগ দুর্নীতি বিরোধী প্রকাশ্য প্রতিবাদ করতেন, যার ফলে এর এগেও দুর্নীতি বিরোধী নিউজ প্রচারের কারণে আওয়ামী ছাত্রলীগ উনার উপরে হামলা ছালায়। উনার বাবার মতে এবার ও সেই পুরাতন জেদে কাওছার আহমেদ এর উপর হামলা করেছে আওয়ামী ছাত্রলীগের সন্ত্রাসী নাবিল ও তার বাহিনী ।

এক বিবৃতিতে সাংবাদিক নেতারা এ ন্যক্কারজনক ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে হামলাকারী সন্ত্রাসী নাবিলকে অবিলম্বে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। পুলিশ মামলা না নেওয়ায়ও তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানিয়ে বিষয়টি জেলা প্রশাসক ও জেলা পুলিশ সুপার এর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তারা। অবিলম্বে এ ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সুনামগঞ্জ রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি জহিরুল ইসলাম লাল. শওকাত হোসেন, সম্পাদক নাসির লিটন, বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি আফজাল হোসেন, সম্পাদক আলহাজ্ব এড. সাহাদাত শাহিন,জগন্নাথপুর জেলা ইনকিলাব সংবাদদাতা মোঃ জহিরুল হক প্রশাসনের কাছে জোর দাবী জানিয়েছেন।