Logo

December 3, 2020, 1:35 pm

সংবাদ শিরোনাম :
«» পরকীয়ায় প্রবাসী স্বামীকে হত্যায় স্ত্রীসহ ৫ জনের ফাঁসি «» কায়স্থগ্রাম সবজিগ্রাম সমিতির টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ «» সংশোধিত কাবিটা নীতিমালা ২০১৭ অনুযায়ী কাবিটা স্কিম প্রনয়ন ও বাস্তবায়ন সংক্রান্ত জেলা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত «» ছাতকে ইউপি চেয়ারম্যান গয়াছ আহমদের মতবিনিময় «» সুনামগঞ্জ-মঙ্গলকাটা রাস্তা মেরামতের ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন করলেন পীর মিসবাহ «» জগন্নাথপুরে প্রথমবারের মত ভোট হবে ইভিএমে «» এ বছর জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাচ্ছেন যারা «» শেরপুর পুলিশ ফাঁড়ির তত্বাবধানে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ «» এমসি কলেজে গণধর্ষণ : ৮ ছাত্রলীগ কর্মীকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট «» কেবি টিভি চেয়ারম্যান মওদুদ আহমদ করোনা আক্রান্ত দোয়া কামনা

নবীগঞ্জে দুই ভূয়া ডাক্তারের জেল-জরিমানা

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে দুই ভূয়া ডাক্তারকে বিভিন্ন মেয়াদে জেল ও জরিমানা করেছে  ভ্রাম্যমান আদালত। গতকাল রবিবার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে নামের আগে  ডাঃ ব্যবহারকারী কাজল দেবনাথ ও অলক চন্দ্র দত্ত নামের দুই ভূয়া ডাক্তারকে আটক করা হয়।

 

 

 

 

 

 

পরে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে জেল ও জরিমানা প্রদান করেন ভ্রাম্যমান  আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মহিউদ্দিন।  এসময় কাজল দেবনাথকে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড  প্রদান ও নগদ ৫০ হাজার  টাকা অর্থদন্ড আদায় করা হয়। অপর ভূয়া ডাক্তার অলক চন্দ্র দত্তকে ছয় মাসের  বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান ও ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড আদায় করা হয়।

 

 

 

 

 

 

জানাযায়, দীর্ঘদিন ধরে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ডাক্তার না হয়েও তাদের নামের আগে ডাক্তার লিখে প্রতারণা করে আসছে একটি চক্র। সম্প্রতি জেলা প্রশাসনের নির্দেশে স্বাস্থ্য বিভাগের সহযোগীতায় অভিযান শুরুর সিদ্ধান্ত নেয় প্রশাসন।  এরই প্রেক্ষিতে থানার একদল পুলিশ নিয়ে অভিযান শুরু করে করেন উপজেলা  নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মহিউদ্দিন। অভিযানে নবীগঞ্জ পৌর শহরের হাসপাতাল সড়কে দেখা যায় একটি সাইনবোর্ড লেখা রয়েছে- ‘দেবনাথ মেডিকেল

সার্ভিস’ এখানে শিশু রোগসহ বিভিন্ন রোগী দেখেন ডাঃ কাজল দেবনাথ।

 

 

 

 

 

 

 

ভিতরে গিয়ে তার কাগজপত্র যাচাই বাচাইকালে বাংলাদেশের কোন সার্টিফিকেট দেখাতে পারেনি। তার কাছে ভারতীয় বিভিন্ন কাগজপত্র পাওয়া গেছে। এ ছাড়া  বেবি ফুডসহ ঔষধ বিক্রির কোন লাইসেন্স না থাকলেও দীর্ঘদিন ধরে তার  মালিকানাধীন ফার্মেসিতে ঔষধ বিক্রি করছিলেন। এসব অপরাধে কাজল দেবনাথকে  তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন এবং নগদ ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড  অনাদায়ে আরো দুই মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড  প্রদান করেন। পরে তার দেবনাথ  মেডিকেল সার্ভিস নামক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানটি সিলগালা করেন।

 

 

 

 

 

 

 

 

অপর দিকে উপজেলার সদর ইউনিয়নের রসূলগঞ্জ নতুন বাজারে দীর্ঘদিন ধরে পার্বতী  নামের ফার্মেসি চিকিৎসার নামে ব্যবসা চালিয়ে আসছিলেন অলক চন্দ্র দত্ত।  তিনিও নামের আগে ডাঃ লিখে বড় করে সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে রেখেছিলেন। তার  কাগজপত্র যাচাই বাচাইকালে তিনি স্বীকার করেন তিনি দশম শ্রেণী পর্যন্ত লেখা  পড়া করেছেন। তার কাছে কোন সার্টিফিকেট না থাকায় তাকেও ছয় মাসের  বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন এবং নগদ ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড  অনাদায়ে  আরো দুই মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড  দেয়া হয়। পরে তাদেরকে নবীগঞ্জ থানা পুলিশের  মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। দন্ডের  বিষয়টি নিশ্চিত করে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বার্হী কর্মকর্তা শেখ

 

 

 

 

 

 

মহিউদ্দিন জানান, এ অভিযান শুরু হয়েছে। পর্যায়ক্রমে উপজেলার সকল গ্রামে গঞ্জে অভিযান পরিচালনা করা হবে।  এসময় অভিযানে সহযোগীতা করেন, নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা  ডাঃ আব্দুস সামাদ, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও ডাঃ চম্পক কিশোর সাহা সহ ভ্রাম্যমাণ আদালতে অংশ গ্রহনকারী প্রশাসনের লোকজন৷

 

 

 

আজকের স্বদেশ/তালুকদার