Logo

October 29, 2020, 2:44 am

সংবাদ শিরোনাম :
«» নিষেধাজ্ঞামুক্ত হলেন সাকিব আল হাসান «» জগন্নাথপুরে প্রবাসী সাবেক ছাত্রদের পক্ষ থেকে শিক্ষকের পরিবারে অনুদান «» কানাইঘাট পৌর মেয়রের অনিয়ম-দুর্নীতি তুলে ধরে নাগরিক কমিটির প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত «» জগন্নাথপুরের কথিত সংবাদ কর্মী আলী হোসেনের বিরুদ্ধে আদালতে চাঁদাবাজির মামলা দায়ের «» দোয়ারাবাজারে আলাউদ্দিনের নামে মুক্তিযোদ্ধা সনদ ও সেনা গেজেট বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন «» ফ্রান্সে মহানবী সা.এর অবমাননার প্রতিবাদে জগন্নাথপুরের ভবেরবাজারে তৌহদী জনতার বিক্ষোভ মিছিল «» পীর হাবিবুর রহমানের বাসায় ভাংচুরের প্রতিবাদে সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের মানববন্ধন «» দেড় বছরের মেয়ের গলায় ছুরি ধরে গৃহবধূকে ধর্ষণ «» ফ্রান্সে মহানবী (সা:) কে অবমাননার প্রতিবাদে তরুণ প্রজন্ম জগন্নাথপুরের মানববন্ধন «» মৌলভীবাজার কমলগঞ্জে ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তর কর্তৃক তদারকি অভিযান

পেঁয়াজে সুখবর

স্বদেশ ডেস্ক::

দেশে পৌঁছাতে শুরু করেছে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে আমদানি করা পেঁয়াজ। আমদানিকৃত পেঁয়াজ পুরোপুরি বাজারে আসতে শুরু করলে দাম আরও কমে আসবে বলে মনে করছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

মঙ্গলবার (০৬ অক্টোবর) বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

এই বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পেঁয়াজ নিয়ে আতঙ্কিত হবার কারণ নেই। দেশীয় পেঁয়াজের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে। উৎপাদনকারী কৃষকরা এ সব পেঁয়াজ বাজারে বিক্রি করা বৃদ্ধি করেছেন। ফলে পেঁয়াজের আমদানি ও সরবরাহ বেড়েছে। দেশে পেঁয়াজের কোনো ঘাটতি নেই। ক্রেতাদের সাশ্রয়ী মূল্যে পেঁয়াজ সরবরাহের উদ্দেশে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) দেশব্যাপী ট্রাক সেলের পাশাপাশি ই-কমার্সের মাধ্যমেও পেঁয়াজ বিক্রি করছে। এতে ক্রেতাদের ব্যাপক সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। ক্রেতাদের চাহিদা পূরণে প্রতি কেজি ৩০ টাকা মূল্যে পেঁয়াজ বিক্রির পরিধি আরও বৃদ্ধি করা হচ্ছে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

এদিকে, চট্টগ্রাম বন্দরে আসা আরও ইস্যু করেছে উদ্ভিদ সংগনিরোধ কেন্দ্র। এই পেঁয়াজগুলোও মিয়ানমার ও পাকিস্তান থেকে এসেছে। এই পেঁয়াজের পরিমাণ প্রায় ১ হাজার ৬ টন। এই পেঁয়াজ এসেছে মিয়ানমার ও পাকিস্তান থেকে। এতে করে কিছুটা স্বস্তি ফিরবে পেঁয়াজের বাজারে এমনটাই আসা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এর আগে গত সপ্তাহে মিয়ানমার থেকে ৫৮ টন এবং পাকিস্তান থেকে ১৭৫ টন পিয়াজ খালাস হয় চট্টগ্রাম বন্দরে। তবে বৃহৎ এই চালানটি খালাস হলে পেঁয়াজের দাম কিছুটা হলেও কমতে পারে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) সকালে কেন্দ্রের উপ-পরিচালক ড. মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান জানান, সোমবার পর্যন্ত আমরা চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দরে আসা ১ হাজার ৬ টন পিয়াজের ছাড়পত্র ইস্যু করেছি। এ পর্যন্ত এ কেন্দ্র থেকে ১ লাখ ৬১ হাজার ৪৫৭ টন পিয়াজ আমদানির জন্য ৩৫১টি অনুমতিপত্র (আইপি) নিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। চীন, মিশর, তুরস্ক, মায়ানমার, নিউজিল্যান্ড, নেদারল্যান্ডস, মালয়েশিয়া, সাউথ আফ্রিকা, ইউক্রেন, সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই), ভারত (২০০ টন) ও পাকিস্তান- এ ১২ দেশ থেকে আরও পেঁয়াজ আনছেন ব্যবসায়ীরা।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

এদিকে বাজারে পেঁয়াজের সরবরাহ ব্যবস্থা স্বাভাবিক রাখতে এসব চালান দ্রুত খালাসের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে বলে জানিয়েছে চট্টগ্রাম কাস্টম হাউস ও চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ।

খাতুনগঞ্জের আড়তদাররা জানান, ভারত রফতানি বন্ধের পর দেশি ও মিয়ানমারের পেঁয়াজের সরবরাহ বেড়েছে খাতুনগঞ্জের আড়তে। প্রতি কেজি দেশি পিয়াজ পাইকারিতে বিক্রি হচ্ছে ৮০-৮৫ টাকা করে। মিয়ানমারের পেঁয়াজ ৮০-৮২ টাকা। বৃহত্তর পাবনা ও ফরিদপুর থেকে দেশি পেঁয়াজ আসছে। দাম বেশি হওয়ায় পেঁয়াজ কম কিনছেন খুচরা দোকানি বা পাইকারি ক্রেতারা।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

আজকের স্বদেশ/জে.এম