Logo

July 10, 2020, 9:33 am

সংবাদ শিরোনাম :

কিশোরগঞ্জে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে সাড়ে ৫০০

আজকের স্বদেশ ডেস্ক::

কিশোরগঞ্জে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ৫৪ জনের করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। ৩১ মে ও ৩ জুন পাঠানো ৪০৮টি নমুনার মধ্যে এ ৫৪ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়। শুক্রবার রাতে এ রিপোর্ট পাওয়া যায়। এ নিয়ে জেলায় এ পর্যন্ত মোট ৫৫৭ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ চিহ্নিত হয়েছে।

 

 

 

শুক্রবার নতুন করে করোনা সংক্রমণ শনাক্তের তালিকায় জেলার সদর উপজেলায় ১৭, করিমগঞ্জে তিন, কটিয়াদিতে পাঁচ, পাকুন্দিয়ায় তিন, কুলিয়ারচরে তিন, ভৈরবে ১৭, বাজিতপুরে পাঁচ ও অষ্টগ্রামে একজন রয়েছেন

 

 

 

শুক্রবার রাত ১২টায় জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব সিভিল ডা. মো. মুজিবুর রহমান জানান, কমিউনিটি ট্রান্সমিশনের কারণে জ্যামিতিক হারে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে।

 

 

নতুন করে এ ৫৪ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হওয়ার পর এ জেলায় করোনা সংক্রমণের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৫৭ জনে।

 

 

 

তিনি বলেন, করোনা উপসর্গ গোপন করা লোকজনের সংস্পর্শে গিয়ে বহু চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী, প্রশাসনের কর্মকর্তা, পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্যরাও আক্রান্ত হয়ে পড়েন।

 

 

তবে, এদের অধিকাংশই ইতিমধ্যেই সুস্থ হয়ে ওঠেছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

 

 

 

সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী কিশোরগঞ্জ জেলার সদর উপজেলায় ৮২ জন, হোসেনপুরে ১৩, করিমগঞ্জে ৪৪, তাড়াইলে ৫০, পাকুন্দিয়ায় ২৯, কটিয়াদীতে ২৪, কুলিয়ারচরে ২২, ভৈরবে ২০০, নিকলীতে ১০, বাজিতপুরে ৩৭, ইটনায় ১৭, মিঠামইনে ২৫ জন ও অষ্টগ্রাম উপজেলায় চারজন রয়েছেন।

 

 

 

আর এদের মধ্যে, তাড়াইল উপজেলায় দুই বছরের শিশুসহ এক পরিবারের চারজন, পাকুন্দিয়ায় এক পরিবারের পাঁচজন, বাজিতপুরে এক পরিবারের আটজন, ইটনাতে এক পরিবারের চারজন এবং ভৈরবে শিশুসহ এক পরিবারের সাত সদস্য আক্রান্ত রয়েছেন।

 

 

 

এ ছাড়াও আক্রান্তদের তালিকায় ৪৬ চিকিৎসক, ১৩ নার্স, ৫৮ স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ কর্মকর্তা ও সদস্য ১১ জন এবং দুই সহকারী কমিশনার (ভূমি) এসিল্যাণ্ড রয়েছেন।

 

 

সূত্রমতে, আক্রান্তদের মধ্যে ২১৯ জন ইতিমধ্যেই সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে গেছেন। বাকিরা আইসোলেশন কিংবা হোম কোয়ারেন্টিনে চিকিৎসাধীন।

 

 

 

 

এ ছাড়া এ পর্যন্ত করোনা সংক্রমণের শিকার হয়ে এ জেলায় এক শিশুসহ ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।

 

আজকের স্বদেশ/তালুকদার