Logo

April 8, 2020, 6:36 pm

সংবাদ শিরোনাম :
«» পরীক্ষার জন্য আরও ৬০ জনের নমুনা বিএসএমএমইউ করোনা ল্যাবে «» রংপুরে ২ নারীর মৃত্যু, অ্যাম্বুলেন্সে লাশ রেখে পালাল চালক ও স্বজনরা «» শেরপুর হামরকোনা বয়েজ ক্লাবের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ ফ্রি সবজি বাজার «» কানাইঘাটে সাংবাদিকদের সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান করলেন ব্যবসায়ী এনামুল হক «» রাষ্টপতির কাছে প্রাণ ভিক্ষার আবেদন মাজেদের «» করোনা প্রতিরোধে রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি সুনামগঞ্জ ইউনিটের বিভিন্ন উদ্যোগ «» দোয়ারাবাজারে ৪৫০টি কর্মহীন পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন ইউপি চেয়ারম্যান আরিফুল ইসলাম জুয়েল «» কানাইঘাট পৌরসভায় সরকারী বরাদ্দকৃত চাল বিতরণে অনিয়ম «» দক্ষিণ সুনামগঞ্জে বাগেরকোনা গ্রামের যুবকদের উদ্যোগে ত্রান সামগ্রী বিতরণ «» জগন্নাথপুরে সৌদি প্রবাসীর অর্থায়নে ৩০০ পরিবারের মধ্যে ত্রান বিতরণ

করোনা: সুনামগঞ্জবাসীর উদ্দেশ্যে ফেসবুক লাইভে যা বললেন ব্যারিষ্টার ইমন

আজকের স্বদেশ ডেস্ক::

বর্তমান বিশ্বেজুড়ে মহামারির আকারে ছড়াতে থাকা নভেল করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে । বাংলাদেশেও ধীরে ধীরে করোনাভাইরাসের প্রভাব বিস্তারে আক্রান্তের সংখ্যা যেমন বৃদ্ধি পাচ্ছে তেমন এতে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর খবরও পাওয়া যাচ্ছে। তবে অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশে অনেক কম এবং বিশেষ করে সনাক্তকৃত ব্যক্তিরা বেশির ভাগ বিদেশফেরত। অনেকেই আবার তাঁদের পরিবারের সদস্য।

 

 

 

দেখা যাচ্ছেে এই অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশের প্রশাসনকে দিন দিন কঠোর অবস্থান নিতে হচ্ছে। তাই যেখানেই অনিয়ম মিলছে সেখানেই ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে করা হচ্ছে জেল জরিমানা। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সরকারের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে সর্বাত্মক ব্যবস্থা।

 

 

 

সচেতনতার জন্য বিভিন্ন মাধ্যমে চলছে এর সচেতনতামূলক প্রচার প্রচারনা। কিন্তু দেশের মানুষ, বিশেষ করে বিদেশফেরত ব্যক্তিরা বা তাঁদের পরিবারের সদস্যরা কি সরকারের নির্দেশনা মেনে চলছেন? প্রশ্নটা আসছে এ কারণেই যে বিদেশ থেকে আসা অনেকেই ঘুরে বেড়াচ্ছেন আত্মীয়-স্বজনের বাড়িতে। কেউ কেউ বিয়ের আসরে যাচ্ছেন। হোম কোয়ারেন্টিনে যাঁদের থাকার কথা, তাঁদের এই অবাধ ঘুরে বেড়ানো ও মেলামেশা করোনাভাইরাস আশঙ্কা বাড়িয়ে দিচ্ছে। দেশের এমন অবস্থায় আমাদের সচেতনতা বাড়ানোর বিকল্প নেই। সরকারের পাশাপাশি নাগরিকদেরও দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিতে হবে।

 

 

 

 

 

তাই সচেতনতা প্রচারের অংশ হিসাবে সোমবার সকাল ১০টায় করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সুনামগঞ্জবাসী সহ দেশবাসীকে সচেতনমুলক কিছু বার্তা দিতে ফেসবুক লাইভ ভিডিওতে আসেন সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক এবং সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের বিপ্লবী সাধারন সম্পাদক ব্যারিষ্টার এনামুল কবির ইমন।

 

 

 

ভিডিওতে এসে তিনি সকলকে নিয়ম মেনে চলার পাশাপাশি সচেতনতা বৃদ্ধিতে তার প্রিয় সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সুনামগঞ্জ জেলা জুড়ে গঠিত শাখার নেতৃবৃন্দদের নির্দেশ প্রদান করেন, আপনারা সকলে নিজ নিজ অবস্থান থেকে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনতামূলক কর্মকান্ড পরিচালনা করুন। ব্যারিষ্টার এনামুল কবির ইমন কর্মিদের সতর্ক করে দিয়ে বলেন, আপনারা অবশ্যই খেয়াল রাখবেন কোন জনসমাগম করে নয়। দুরত্ব বজায় রেখে লিফলেট বিতরণ করতে পারেন এবং কর্মসূচিতে যাবার সময় অবশ্যই মুখে মাক্স, হাতে গ্লাভস এবং স্যানিটাইজার নিয়ে যাবেন। নিজেরা নিয়ম মেনে চলবেন, ঠিক সেভাবে অন্যদের নিয়ম মানাতে উদ্বুদ্ধ করবেন।

 

 

ব্যারিষ্টার এনামুল কবির ইমন আরো বলেন, যেহেতু জনসমাগম এই ভাইরাসে বৃদ্ধি পাবে এজন্য চেষ্টা করুন ডিজিটালাই্জভাবে কাজ করতে। আপনারা অনলাইন/ ফেসবুকে প্রচুর সচেতনতামূলক পোস্ট করুন। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে প্রত্যেককে ব্যক্তিগতভাবে কাজ করতে হবে। নাগরিকরা দায়িত্বশীলতার পরিচয় দিয়ে সাবধানতা অবলম্বন করলে সংক্রমণ রোধ অনেকটাই সম্ভব হবে।

 

 

 

 

 

 

 

ব্যারিষ্টার এনামুল কবির ইমন আরো বলেন, আমাদের প্রত্যেকের ব্যবহারের জিনিস, নিয়মিত হাত ধোয়া থেকে শুরু করে সবকিছুতে সচেতন থাকতে হবে। প্রয়োজনে নামাজ বা প্রার্থনা ঘরে বসে আদায়ের চেষ্টা করতে হবে। নিজেকে রক্ষা করার জন্য সচেষ্ট হলে অন্যজন ভালো থাকবে। আমরা শুধুমাত্র সচেতন থাকলেই করোনা ভাইরাস দূর করতে পারবো ইনশাআল্লাহ।

 

 

 

আজকের স্বদেশ/তালুকদার