Logo

July 12, 2020, 12:30 pm

সংবাদ শিরোনাম :
«» জগন্নাথপুরে মুক্ত সমাজ কল্যাণ সংস্থার ১ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত «» ন্যায্য মূল্যে মাস্ক বিক্রি ও নকল হ্যান্ড সেনিটাইজার বিক্রি বন্ধে ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তরের অভিযান «» দিরাইয়ে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু «» করোনায় মারা গেলেন আরও ৪৭ জন , আক্রান্ত ২৬৬৬ «» নভেম্বরে মানবদেহে ভ্যাকসিনের পরীক্ষা চালাবে থাইল্যান্ড «» প্রাইভেট না পড়ায় শিক্ষার্থীর বই নিয়ে গেলেন শিক্ষক «» মাস্ক মুখে দিয়েও ট্রাম্প বললেন ‘আমি মাস্কের বিরুদ্ধে’ «» ইতালিতে ফের ছড়াচ্ছে করোনা, নতুন রোগীদের সিংহভাগ বাংলাদেশি «» ছাদ থেকে পড়ে মায়ের মৃত্যু, অলৌকিকভাবে বেঁচে গেল কোলের শিশু «» পাপুল কাণ্ডে কুয়েতের সেনা কর্মকর্তা গ্রেফতার

একুশের শহীদদের প্রতি জানাই গভীর শ্রদ্ধা

 

আজকের দিনটি আমাদের জাতীয় জীবনে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আজ মহান শহীদ দিবস। একই সঙ্গে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসও আজ। ১৯৪৭ সালে পাকিস্তান রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার পর থেকেই পশ্চিমাঞ্চলের শাসকগোষ্ঠী পূর্বাঞ্চলের সংখ্যাগরিষ্ঠ বাঙালিকে তাদের অধীন করে রাখার পরিকল্পনা করে।

 

 

এর অংশ হিসেবে প্রথমেই তারা বাঙালিকে ভুলিয়ে দিতে চায় তার সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য। সংখ্যাগরিষ্ঠের ভাষাই হওয়া উচিত রাষ্ট্রভাষা বাস্তব সত্য অস্বীকার করে বাংলার পরিবর্তে উর্দুকে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে প্রতিষ্ঠার প্রয়াস পায় তারা।

 

উদ্দেশ্য ছিল মাতৃভাষা কেড়ে নিয়ে বাঙালির জাতিসত্তাকে পঙ্গু করে দেয়া। কিন্তু এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদমুখর হয়ে ওঠে বাঙালি। শুরু হয় বাংলাকে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে প্রতিষ্ঠার আন্দোলন। একপর্যায়ে ১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারি বিক্ষোভরত ছাত্রজনতার ওপর চালানো হয় গুলি।

 

শহীদ হন বরকত, সালাম, রফিক, জব্বারসহ অনেকে। বায়ান্নর একুশে ফেব্রুয়ারি বাঙালির স্বাধিকার আন্দোলনে যোগ করে নতুন মাত্রা।শহীদদের রক্ত তাদের প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হতে প্রেরণা জোগায়। এর পরের ইতিহাস পর্যায়ক্রমিক আন্দোলনের।

একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। এর অর্থ পৃথিবীর সব মাতৃভাষাই স্ব স্ব জাতির নিজস্ব অপরিবর্তনযোগ্য ভাষা। সব মাতৃ আঞ্চলিক ভাষাকেই সমান মর্যাদা দিয়ে সংরক্ষণের দায়িত্বও রয়েছে বিশ্ববাসীর। একুশের শহীদদের প্রতি জানাই আমাদের গভীর শ্রদ্ধা। শহীদ স্মৃতি অমর হোক।

 

গোলাম সারোয়ার

সম্পাদক ও প্রকাশক

আজকের স্বদেশ ডটকম।

 

 

 

আজকের স্বদেশ/জুয়েল