Logo

January 20, 2020, 3:34 am

সংবাদ শিরোনাম :
«» জীবন নদীর আত্নপ্রকাশ সুনামগঞ্জে ইতিহাস হয়ে থাকবে……. মেয়র নাদের বখত «» দোয়ারাবাজারে সেরুজ্জামান হত্যা মামলার পলাতক আসামী গ্রেপ্তার «» কানাইঘাট জুলাই ইয়াং স্টার স্পোটিং ক্লাবের ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল সম্পন্ন «» বিশ্বনাথে ইংলিশ বংশদূত ডাক্তারদের ফ্রি ডেন্টাল মেডিকেল ক্যাম্প «» দিরাইয়ে ফরহাদ আলম ব্যাডমিন্টনের ফাইনাল- চ্যাম্পিয়ন কাশিফ ফাইটার্স «» কানাইঘাটে ন্যাশনাল লাইফের মরনোত্তর বীমা দাবীর চেক প্রদান «» রানীগঞ্জ ইউনিয়ন চ্যাম্পিয়নশীপের কোয়ার্টার ফাইনালের ১ম ম্যাচে অনন্তপুর একতা ফুটবল ক্লাব বিজয়ী «» সুনামগঞ্জে ডিসি অফিসের কর্মচারীদের কর্মবিরতীর ঘোষণা «» ছাতকে দু’দিন ব্যাপী আন্তঃস্কুল ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সম্পন্ন «» মৌলভীবাজারে স্ত্রী-শাশুড়িসহ চারজনকে খুন করে আত্মহত্যা

দিরাইয়ে চরনারচর ইউপি চেয়ারম্যানের বিভিন্ন অনিয়ম দূর্নীতি ক্ষমতার অপব্যবহারের প্রতিবাদে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন

দিরাই থেকে জামালগঞ্জ প্রতিনিধি::

সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই উপজেলার চরনারচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও বিএনপি দলীয় নেতা রতন কুমার দাস তালুকদারের  বিভিন্ন অনিয়ম, দূর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের বিরুদ্ধে  ফুঁসে উঠেছে এলাকার সর্বস্তরের জনগণ।

 

এনিয়ে আজ বৃহস্পতিবার (৫ডিসেম্বর)দুপুরে  স্থানীয় শ্যামারচর বাজারে এলাকার সহস্রাধিক লোকজন  বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী এক মানববন্ধন  কর্মসূচির আয়োজন করে।

 

এলাকার বর্ষীয়ান মুরুব্বি প্রসন্ন কুমার দাসের  সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, দিরাই উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক পরিতোষ রায়, শাল্লা উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মো. কালাই মিয়া, চরনারচর ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা জ্যোতির্ময় দাস, চরনারচর ইউপি সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান  চন্দন কুমার তালুকদার, ইউপি সদস্য  সত্যবান বৈষ্ণব, চিত্তরঞ্জন সূত্রধর, আরজ আলী, দীপ্তি রাণী দাস, মানিকদা গ্রামের প্রবীন মুরুব্বি মো. কামাল হোসেন প্রমূখ।

 

 

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বর্তমান চেয়ারম্যান জনগণের মতামত ও অনুভূতিকে কোন মূল্যায়নই করছেন না। তিনি ক্ষমতার অপব্যবহার করে সরকারের দেওয়া সকল বরাদ্দ থেকে অর্থ লোপাট করছেন। এরকম নজিরবিহীন ও নির্লজ্জ্ব দূর্নীতি অতীতের কোন চেয়ারম্যানের আমলে হয়নি। তিনি বিএনপি সমর্থিত নেতা হওয়ায় সরকারের সকল সুযোগ সুবিধা ভোগ করেও সরকারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময়ে  দাপটের সাথে বিষেধাগার করে থাকেন। এই এলাকায় আওয়ামী লীগ সমর্থক কাউকেই তিনি তোয়াক্কা করেন না। তার হাত অনেক লম্বা এবং ক্ষমতার উপর স্তরে তার হাত রয়েছে বলে উন্নয়নের ন্যায্যতা দাবীদার জনগণকে তিনি সময়ে সময়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে থাকেন।

 

তার অনিয়ম দূর্নীতি, লোটপাট, ক্ষমতার অপব্যবহার, ও মাস্তানির কাহিনী বলে শেষ করা যাবে না। তার দপটে পরিষদের সদস্যরা কোণঠাসা হয়ে থাকেন।  আমরা সরকারের দেওয়া সকল প্রকার বরাদ্দের সিংহ ভাগ বরাদ্ধ  চেয়ারম্যান কর্তৃক আত্মসাৎ হওয়ায় বাধ্য হয়ে রাস্তায় নেমেছি। আমরা জানি না রতন চেয়ারম্যানের কুঠির জোর কোথায়। আমরা জনগণ সরকারের কাছে দাবী জানাই,  এসকল অনিয়ম দূর্নীতির  সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে আত্মসাৎকারীর   বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হোক।

 

 

উল্লেখ্য, বিগত স্থানীয় সরকারের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী হিসেবে ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করে বহুল আলোচিত চেয়ারম্যান রতন কুমার দাস তালুকদার ইউপি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।

 

নির্বাচিত হয়ে দায়িত্ব গ্রহনের পর পরই তিনি সকল ওয়ার্ড সদস্যদের উপর বিভিন্ন ভাবে প্রভাব বিস্তার করে সরকারের দেওয়া বিভিন্ন উন্নয়নখাতে আসা বরাদ্ধ  আত্মসাৎ ও লোপাটে জড়িয়ে পড়েন। জনগণের মতামত ও অনুভূতিকে পাশ কাটিয়ে ক্ষমতার অপব্যবহার করে নিজের পকেট ভারী করতে থাকেন।

 

সরকারের সকল সুযোগ সুবিধা ভোগ করেও  বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন সভা সমাবেশে বিভিন্ন ইস্যুতে সরকারের বিরুদ্ধে  বিষেধাগার ও সমালোচনা করে সরকার বিরুধী বক্তব্য প্রদান করেন। আর এতেই প্রতিবাদে ফুঁসে ইউনিয়নের সাধারণ জনগণ ও পরিষদ সদস্যরা। যার পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৮ নভেম্বর চরনারচর ইউনিয়ন পরিষদের ১২ জন সদস্য একযোগে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনাস্থা জানিয়ে দিরাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে লিখিত প্রস্তাব দাখিল করেন।

 

 

 

 

 

আজকের স্বদেশ/জুয়েল