Logo

June 6, 2020, 5:09 pm

সংবাদ শিরোনাম :

মেয়েটি বাধা দেয়নি বলে আদালত ধর্ষণই মনে করল না!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক::

সম্প্রতি স্পেনের একটি আদালত যৌন নির্যাতনের অভিযোগ থেকে পাঁচ ব্যক্তিকে অব্যহতি দিয়েছে। কারণ দেশটির ধর্ষণ সংক্রান্ত আইনের সংজ্ঞার মধ্যে তাদের অপরাধটি পড়েনি। আদালত বলছে, ১৪ বছর বয়সী ভুক্তভোগী মেয়েটি অচেতন ছিল ওবং আক্রমণে প্রতিরোধ করেনি।

একটি প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে।

 

সিএনএন জানিয়েছে, মেয়েটির ওপর যৌন নির্যাতনের জন্য পাঁচ সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। তবে তাদেরকে সাজা অনেক কম দেওয়া হয়েছে। কারণ স্প্যানিশ আইন বলছে, যৌন নির্যাতনকে ধর্ষণ হিসাবে তখনই বিবেচনা করা যেতে পারে যদি ভুক্তভোগীকে বশীভূত করতে আক্রমণকারীরা সহিংস আচরণ করে।

 

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সন্দেহভাজনরা মাদক ও অ্যালকোহল খাইয়ে অচেতন করে কিশোরীটির সাথে যৌনক্রিয়া চালিয়েছিল। এক পার্টি অনুষ্ঠানের পরে মানরেসা শহরে একটি পরিত্যক্ত কারখানায় মেয়েটিকে অচেতন অবস্থায় পাওয়া যায়।

 

সিএনএন জানিয়েছে, ওই হামলার জন্য তাদেরকে ১০ থেকে ১২ বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

প্রতিবেদন বলছে, বার্সেলোনা আদালত সাজা দেওয়ার পরে একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলেছে, ভুক্তভোগীর ওপর যৌন আক্রমণ অত্যন্ত তীব্র এবং বিশেষভাবে নিন্দনীয় ছিল। এ ছাড়া এটি অসহায় অবস্থায় থাকা একজন নাবালিকার ওপর হামলা।

 

এই মামলার রায়ের পরে স্পেনের সরকারের নতুন চাপ সৃষ্টি হয়েছে। অ-সম্মতিযুক্ত যৌন আচরণকে আক্রমণ হিসাবে পুনরায় শ্রেণিবদ্ধ করার জন্য দাবি জানাচ্ছে জনগণ।

সূত্র : নিউ ইয়র্ক পোষ্ট

 

 

 

আজকের স্বদেশ/এবি