Logo

October 15, 2019, 1:56 am

সংবাদ শিরোনাম :
«» দিরাইয়ে শিশু তুহিন হত্যার ঘটনায় পরিবারের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে – সহকারী পুলিশ সুপার «» সাড়ে তিন কোটি টাকার পাথর লুঠের মামলায় আলোচিত ব্যবসায়ী মাতাই জেল হাজতে «» বাঘায় ২ সতীতের ভোটযুদ্ধ «» ‘জিনের’ হাত থেকে উদ্ধার সেই কিশোরী ফিরে গেল পরিবারে «» কানাইঘাট আইন শৃংখলা ও চোরাচালান প্রতিরোধ কমিটির সভা অনুষ্ঠিত «» জগন্নাথপুরে বহুল প্রতিক্ষিত মিরপুর ইউনিয়ন নির্বাচন সম্পন্ন: আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী শেরীন বিশাল ব্যবধানে জয়ী «» রৌয়াইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এ বৃক্ষ রোপন «» আবরারের হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতের আশ্বাস «» জগন্নাথপুরের মিরপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ২নং ওয়ার্ডে মাহবুব হোসেন বিজয়ী «» ঘুষের টাকাসহ ধরা পড়লেন পাসপোর্ট অফিসের সহায়ক

সিরিয়ায় তুরস্কের সামরিক অভিযান শুরু (ভিডিও)

আন্তর্জাতিক ডেস্ক::

সিরিয়ার উত্তর-পূর্ব সীমান্ত এলাকায় কুর্দি যোদ্ধাদের বিরুদ্ধে পূর্ণমাত্রার সামরিক অভিযান শুরু করেছে তুরস্ক।

সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে কুর্দি ও আইএসের বিরুদ্ধে অপারেশন পিস স্প্রিং শুরু হয়েছে বলে দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান জানিয়েছেন।

 

এক টুইটবার্তায় এরদোগান বলেন, সিরিয়ার জাতীয় সেনাবাহিনীর সঙ্গে আমাদের তুর্কি সশস্ত্র বাহিনী সিরিয়ার উত্তরে কুর্দি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেছে। আমরা আমাদের দেশের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদের হুমকি দূর করব।

 

তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, শরণার্থীদের জন্য আমরা নিরাপদ জোন তৈরি করব। সিরিয়ার শরণার্থীদের তাদের দেশে ফিরিয়ে দিতে চাই। আমরা সিরিয়ার অখণ্ডতা রক্ষা করব এবং এই অঞ্চলের সব মানুষকে সন্ত্রাসবাদের হুমকি থেকে রক্ষা করব।

এর আগে বুধবার ভোরের দিকে সেনাবাহিনীর অগ্রবর্তী দলগুলো তাল আবায়েদ ও রাস আল-আইন শহরের দুটি পয়েন্ট দিয়ে সিরিয়ায় ঢুকে বলে তুরস্কের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

 

তুর্কি সীমান্তবর্তী সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে কুর্দি সন্ত্রাসীদের আস্তানা গুঁড়িয়ে দিতে সোমবার সামরিক অভিযান পরিচালনার সিদ্ধান্ত নেয় এরদোগান সরকার। সামরিক অভিযানের প্রস্তুতি হিসেবে সিরিয়া সীমান্তে তুরস্কের সাঁজোয়া যান মোতায়েনের ছবি ও ভিডিও প্রকাশিত হয়েছিল।

 

প্রেসিডেন্ট এরদোগানের মুখপাত্র ইব্রাহিম কালিন বলেন, সন্ত্রাসী আস্তানা গুঁড়িয়ে দিতেই তুর্কি সীমান্তবর্তী সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে সামরিক অভিযান পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে আঙ্কারা।

 

সীমান্তে একটি ‘নিরাপদ অঞ্চল’ প্রতিষ্ঠা করে সিরীয় শরণার্থীদের দেশে ফেরার পথ করে দিতে এ অভিযান হবে বলেও জানিয়েছিল তারা।

 

তুরস্কের অভিযান চালানোর ঘোষণার পর ওই অঞ্চল থেকে নিজেদের সেনা সরিয়ে নিতে শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র। এই সিদ্ধান্তের কঠোর সমালোচনা করেছেন ট্রাম্পের রিপাবলিকান মিত্ররাও।

মার্কিন সৈন্য প্রত্যাহারের ফলে তুরস্কের জন্য কুর্দি যোদ্ধাদের বিরুদ্ধে পূর্ণমাত্রার সামরিক অভিযান চালানোর সুযোগ তৈরি হয়।

 

 

 

 

 

 

আজকের স্বদেশ/জুয়েল