Logo

October 15, 2019, 1:48 am

সংবাদ শিরোনাম :
«» দিরাইয়ে শিশু তুহিন হত্যার ঘটনায় পরিবারের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে – সহকারী পুলিশ সুপার «» সাড়ে তিন কোটি টাকার পাথর লুঠের মামলায় আলোচিত ব্যবসায়ী মাতাই জেল হাজতে «» বাঘায় ২ সতীতের ভোটযুদ্ধ «» ‘জিনের’ হাত থেকে উদ্ধার সেই কিশোরী ফিরে গেল পরিবারে «» কানাইঘাট আইন শৃংখলা ও চোরাচালান প্রতিরোধ কমিটির সভা অনুষ্ঠিত «» জগন্নাথপুরে বহুল প্রতিক্ষিত মিরপুর ইউনিয়ন নির্বাচন সম্পন্ন: আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী প্রার্থী শেরীন বিশাল ব্যবধানে জয়ী «» রৌয়াইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এ বৃক্ষ রোপন «» আবরারের হত্যাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতের আশ্বাস «» জগন্নাথপুরের মিরপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ২নং ওয়ার্ডে মাহবুব হোসেন বিজয়ী «» ঘুষের টাকাসহ ধরা পড়লেন পাসপোর্ট অফিসের সহায়ক

বুয়েটের শের-ই বাংলা হলের প্রভোস্টের পদত্যাগ

আজকের স্বদেশ ডেস্ক::

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে ছাত্রলীগের পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় শের-ই বাংলা হলের প্রভোস্ট ড. মো. জাফর ইকবাল খান পদত্যাগ করেছেন।

বুধবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত ৩০০ শিক্ষকের উপস্থিতিতে এক বৈঠকে তিনি এ পদত্যাগপত্র জমা দেন তিনি। বৈঠকে হত্যাকাণ্ডকে কেন্দ্র করে শিক্ষার্থীদের চলমান আন্দোলনে বুয়েট ভিসির পদত্যাগসহ ১০ দফা দাবির সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে বুয়েট শিক্ষক সমিতি। তারা আবরার হত্যায় প্রশাসনিক ব্যর্থতার দায় নিয়ে ভিসি সাইফুল ইসলামকে পদত্যাগ করার আহ্বান জানান।

এর আগে বুয়েট অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের এক প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে বুয়েট ভিসির অপসারণ দাবি করা হয়।

প্রসঙ্গত ভারতের সঙ্গে চুক্তির বিরোধিতা করে শনিবার বিকালে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন ফাহাদ। এর জের ধরে রোববার রাতে শেরেবাংলা হলের নিজের ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে তাকে ডেকে নিয়ে ২০১১ নম্বর কক্ষে বেধড়ক পেটানো হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। পিটুনির সময় নিহত আবরারকে ‘শিবিরকর্মী’ হিসেবে চিহ্নিত করার চেষ্টা চালায় খুনিরা।

তবে আবরার কোনো রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন না বলে নিশ্চিত করেছেন তার পরিবারের সদস্যসহ সংশ্লিষ্টরা।

হত্যাকাণ্ডের প্রমাণ না রাখতে সিসিটিভি ফুটেজ মুছে (ডিলেট) দেয় খুনিরা। তবে পুলিশের আইসিটি বিশেষজ্ঞরা তা উদ্ধারে সক্ষম হন। পুলিশ ও চিকিৎসকরা আবরারকে পিটিয়ে হত্যার প্রমাণ পেয়েছেন।

এ ঘটনায় বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি মুহতাসিম ফুয়াদ ও সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেলসহ ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে এ ঘটনায় ১৪ জন জড়িত বলে জানিয়েছেন ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (অপরাধ) কৃষ্ণপদ রায়।

এ ঘটনায় ১৯ জনকে আসামি করে তার বাবা চকবাজার থানায় সোমবার রাতে একটি হত্যা মামলা করেন। বুয়েট কর্তৃপক্ষ একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছে। পাশাপাশি গঠন করেছে একটি তদন্ত কমিটিও।

এদিকে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার প্রমাণ মেলায় বুয়েট শাখার সহসভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ১১ জনকে ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে ১০ জনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

 

 

 

আজকের স্বদেশ/এবি