Logo

February 23, 2020, 2:17 pm

সংবাদ শিরোনাম :

জগন্নাথপুরে মানবতার সেবায় এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত প্রবাসী ফজলুল হকের

দুলন মিয়া:

চিকিৎসা করার কিংবা ঔষধ কেনার জন্য টাকা নেই , গরীব বাবার কন্যার বিয়ের খরচ সামাল দিতে পারছেন না, টাকার জন্য ভর্তি হতে কিংবা বই কিনতে পারছেন না দরিদ্র শিক্ষার্থী,এমন অসংখ্য দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে মানবতার এক অনন্য নজির সৃষ্টি করেছেন জগন্নাথপুর উপজেলার রানীগঞ্জ ইউনিয়নের গন্ধর্ব্বপুর গ্রামের ইউকে প্রবাসী হাজী মো. ফজলুল হক।

প্রবাসী এই দানবীর সম্পর্কে জানতে চাইলে রানীগঞ্জ ইউনিয়নের একাদিক ব্যক্তি জানান, হাজী ফজলুল হক আমার পাশের গ্রামের এবং উনার সাথে আমাদের সুসম্পর্ক রয়েছে। শৈশব বয়স থেকেই এই ব্যক্তি সমাজের বিভিন্ন পর্যায়ের অসহায় মানুষের পাশে থেকে কাজ করেছেন।

প্রবাস জীবনে নিজেকে অর্থনীতিক ভাবে স্বাবলম্বী করার পর থেকে নীরবে নিবৃতে সমাজের অসংখ্য অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন এই ব্যক্তি। সামাজিক ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে মুক্তহস্তে দান করে যাচ্ছেন প্রবাসী এই ব্যক্তি।

তারা আরো জানান, আমাদের সমাজে অনেকেই সামর্থ্যবান হলেও অসহায় মজলুমের পাশে বিপদে আপদে দাঁড়ানোর মানুসিকতা অনেকের নাই। প্রবাসী ফজলুল হক এই নীরব সমাজ সেবা অন্য সামর্থ্যবানদের মধ্যে সমাজের অসহায় মানুষের প্রতি তাঁদের দায়িত্ব ও কর্তব্য স্মরণ করিয়ে দিবে বলে মনে করেন।

দরিদ্র, অসহায় কিংবা সহায়সম্বলহীনদের জন্য সাহায্যের সুপারিশ করে কখনোই খালি হাতে ফিরতে হয় না। বস্তুত অসহায় কাউকে কোন যৌক্তিক সাহায্যের বিষয়ে না বলার সামর্থ্য ফজলুল হকের।

তিনি রানীগঞ্জ ই্উনিয়নের একাদিক সামাজিক সংগঠনের সাথে জড়িত বিভিন্ন সময় সামাজিক সংগঠনের মাধ্যমে অনুদান দিয়ে থাকেন। গতকাল শনিবার উপজেলার সাংবাদিকদের সংবর্ধনা অনুষ্টানে অসহায় ২টি ছাত্রকে হাফিজি সম্পন্ন করার আগ পর্যন্ত তিনি খরচ দিবেন এবং রানীগঞ্জ দারুচ্ছুন্নাহ হাফিজিয়া সিনিয়র মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক মাওলানা আনহার উদ্দিনের পরিবারকে নগদ অর্থ দান করেন।

 

 

 

আজকের স্বদেশ/দেওয়ান