Logo

February 27, 2020, 1:46 am

সংবাদ শিরোনাম :
«» পাপিয়ার অবৈধ সম্পদের খোঁজ নিচ্ছে দুদক «» দেশে প্রথমবারের মতো পুড়ে যাওয়া ইঞ্জিন সচল, বাঁচল ৩০ কোটি টাকা «» কানাইঘাটে রাস্তা কেটে দেওয়ায় বিপাকে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা «» আমরা সত্যিকার অর্থেই জনগণের পুলিশ হতে চাই: আইজিপি «» জগন্নাথপুরে আরাফাত রহমান কোকো গোল্ড কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ২য় রাউন্ড সম্পন্ন «» জগন্নাথপুরে শিক্ষার্থীদের মধ্যে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ «» মৌলভীবাজারে পৃথক অভিযানে ৪ মাদক ব্যবসায়ী আটক «» বিশ্ব মানবতার কল্যাণে মুসলিম জাতির তাকওয়া অর্জনই ইহ-পরকালীন শান্তি ও মুক্তির একমাত্র পথ ——–আল্লামা হাসান জামিল, ঢাকা «» কবর জিয়ারতে বাধা ও হামলার প্রতিবাদে মৌলভীবাজার জেলা ছাত্রদলের বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত «» নবীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভা

দিরাইয়ে জ্যান্ত গরু চিবিয়ে খাওয়ার সংবাদে এলাকায় আতংক, রাতের অন্ধকারে চলাচলে এলাকার মানুষ ভয় পাচ্ছেন

নিজস্ব প্রতিনিধি::

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার পাশ^বর্তী দিরাই উপজেলার বহুল আলোচিত জবাই ছাড়া একটি জ্যান্ত গরু চিবিয়ে খাওয়ার ঘটনার সংবাদে দিরাই সহ পাশ্ববর্তী এলাকার মানুষের মধ্যে এখনও আতংক বিরাজ করছে।

জ্যান্ত গরু খাওয়া যুবক মানুষও খেয়ে ফেলতে পারে এমন ধারণায় রাতের বেলা চলাচলে এলাকার মানুষ ভয় পাচ্ছে। অনেকই সন্ধ্যার সময় বাড়ী ফিরে যাচ্ছেন। এছাড়াও স্কুলের ছাত্র/ছাত্রীরা গরু খেকো আতংকে স্কুলে যেতেও ভয় পায় বলে জানা গেছে।

আলোচিত ঘটনার সত্যতা নিয়ে এলাকায় সমালোচনার ঝড় উঠেছে। সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত এঘটনাকে নিহাতই গুজব বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকই মন্তব্য করেছেন।

উল্লেখ্য গত ৫ মার্চ দিরাই উপজেলার কুলঞ্জ ইউনিয়নের হাতিয়া শামনগরের এশাই মিয়ার ওমান ফেরত ছেলে জিয়াউর রহমান (২৫) একই গ্রামের জমির হোসেনের একটি গরু জ্যান্ত  খেয়ে ফেলার ঘটনাটি সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পরে।

ঘটনার দিন জিয়াউর রহমানকে গরুর ১টি রান বাড়িত নিয়ে গলে পরিবারের লোকজন মাংস কোথায় পেলে প্রশ্ন করেন। উত্তরে সে বলে জ্যান্ত গরুকে কেটে পুরোটা খেয়ে একটি অংশ বাড়িতে নিয়ে এসেছি।

 

তাৎক্ষনিক খবরটি এলাকায় ছড়িয়ে পরলে অনেকেই ঘটনা স্থলে গিয়ে একটি গরুর তিনটি রান পরে থাকতে দেখেন।

মানুষের মধ্যে ঘটনাটি প্রাথমিক অবস্থায় বিশ্বাস হয় এবং জিন ভূতের আছর থাকায় এমন ঘটনা ঘটতে পারে ধারনা করেন। পরদিন মাথা সহ গরুটি অপর একটি পুুকুরে পরিত্যাক্ত অবস্থায় দেখতে পান।

এসময় স্থানীয়রা  জ্যান্ত গরু খাওয়ার ঘটনাটি সম্পুর্ন মিথ্যা প্রমানিত করেন। তবে কিভাবে গরুটা টুকরো টুকরো করা হল এর কারণ এখনো যানা যায়নি।

এতে হাতিয়া গ্রামে এ ঘটনায় সৃষ্ট ভয়ভীতি দুুরিভত হলেও কুলঞ্জ ইউনিয়নে পার্শ্ববর্তী এলাকায় গরুখেকোর আতংক এখনো রয়েছে।

 

 

আজকের স্বদেশ/জুয়েল