July 16, 2019, 6:48 am

সবাইকে ঋতুরাজ বসন্তের শুভেচ্ছা

 

আজ পয়লা ফাল্গুন, ঋতুরাজ বসন্তের প্রথম দিন। কোকিলের মায়াবী সুরে শ্যামলিমার জেগে ওঠার দিন আজ। জবুথবু শীতের আষ্টেপৃষ্ঠে বন্ধন থেকে জীর্ণতা সরিয়ে প্রকৃতির ফুলে ফুলে সেজে ওঠার দিন এই বসন্ত। সবাইকে বসন্তের শুভেচ্ছা “শুভ বসন্ত”।

 

বসন্ত কচিপাতায় আনে নতুন রঙ, আলোর নাচন।  তাই তো সবুজ পত্রপল্লবের আবডালে লুকিয়ে বসন্তের দূত কোকিল শোনায় মদির কুহুকুহু ডাক। আর এই ডাকে ব্যাকুল হয় বিরহী মন।

১৯৫২ সালের আট ফাল্গুন বা একুশের পলাশরাঙা দিনের সঙ্গে তারুণ্যের সাহসী উচ্ছ্বাস আর বাঁধভাঙা আবেগের জোয়ার যেন মিলেমিশে একাকার হয়ে আছে।

বাংলা পঞ্জিকা মতে বর্ষের শেষ ঋতু বসন্তের প্রথম দিনকে বাঙালি পালন করে ‘পহেলা ফাল্গুন ’ হিসেবে । এই দিন বাঙালির বসন্ত উৎসবে মেতে ওঠার দিন । বাঙালির নিজস্ব সার্বজনীন প্রাণের উৎসব।

এ উৎসব এখন গোটা বাঙালির কাছে ব্যাপক সমাদৃত হয়েছে।বাংলায় বসন্ত উৎসব এখন প্রাণের উৎসবে পরিণত হলেও এর শুরুর একটা ঐতিহ্যময় ইতিহাস আছে।

মোগল সম্রাট আকবর প্রথম বাংলা নববর্ষ গণনা শুরু করেন ১৫৮৫ সালে। নতুন বছরকে কেন্দ্র করে ১৪টি উৎসবের প্রবর্তন করেন তিনি।

এর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে বসন্ত উৎসব। তখন অবশ্য ঋতুর নাম এবং উৎসবের ধরনটা এখনকার মতো ছিল না। তাই পহেলা ফাল্গুন বা বসন্ত উৎসব কেবল উৎসবে মেতে ওঠার সময় নয়।

এর সঙ্গে জড়িয়ে আছে বাংলার গৌরবময় ঐতিহ্য, বাঙালিসত্তা। সে ঐতিহ্যের ইতিহাসকে ধরে রাখতে পারলেই বসন্ত উৎসবের সঙ্গে সঙ্গে নতুন প্রজন্ম মেলে ধরতে পারবে বাঙালি চেতনাকে। বঙ্গাব্দ ১৪০১ সাল থেকে প্রথম ‘বসন্ত উৎসব’ উদযাপন করার রীতি চালু হয়।

 

আজ দিনভর চলবে তাদের বসন্তের উচ্ছ্বাস প্রকাশ। ফোন, ফেসবুক, টুইটারসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলবে বসন্তের শুভেচ্ছা বিনিময়। আজ নানা আয়োজনে বসন্তকে বরণ করবে বাঙালি।

 

আজকের স্বদেশ ডটকমের সকল পাঠক সহ সবার প্রানে লাগুক ফাগুনের রঙ, বসন্তের মত রঙময় হোক আমাদের জীবন। আগুনরাঙা প্রকৃতির আবেশে আমাদের মাঝে জ্বলে উঠুক দ্রোহের আগুনশিখা, সেই আগুনে পুড়ে খাঁটি হয়ে উঠি আমরা সবাই।আবারো সবাইকে বসন্তের শুভেচ্ছা।

 

গোলাম সারোয়ার

সম্পাদক ও প্রকাশক

আজকের স্বদেশ ডটকম।

 

আজকের স্বদেশ/জুয়েল

More News Of This Category


পুরাতন সংবাদ

Fri Sat Sun Mon Tue Wed Thu
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728