1. abubakarpressjp@gmail.com : Md Abu bakar : Md Abubakar bakar
  2. sharuarpress@gmail.com : admin520 : Md Gulam sharuar
  3. : alamin328 :
  4. jewela471@gmail.com : Jewel Ahmed : Jewel Ahmed
  5. ajkershodesh@gmail.com : Mdg sharuar : Mdg sharuar
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ১০:২৪ অপরাহ্ন
হেড লাইন
জগন্নাথপুরে ভারী যানবাহন চলাচলে বেহাল জনগুরুত্বপূর্ণ রাস্তা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন-২০২৪ প্রতীক পেলেন শান্তিগঞ্জ উপজেলার প্রার্থীরা ওয়ার্ল্ড ভিশননের বাষির্ক কার্যক্রম মূল্যায়ন ও উন্নয়ন পরিকল্পনা জগন্নাথপুরে সামাজিক ও মানবতার সংগঠন “রানীগঞ্জ উন্নয়ন সংস্থা” এর শুভ উদ্বোধন চতুলবাসীর ভালোবাসার প্রতিদান দিতে চাই চেয়ারম্যান প্রার্থী শামসুজ্জামান বাহার বাংলাদেশ পরিবেশ পরিক্রমা মানবাধিকার সাংবাদিক সোসাইটির সিলেট বিভাগীয় কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত সাতগাঁও বাজারের নির্বাচনী সভায় দিলীপ বর্মন : সন্ত্রাসমুক্ত সম্প্রীতিময় বিশ্বম্ভরপুর গঠনে ঘোড়া মার্কায় ভোট দিন হীড বাংলাদেশের আয়োজনে যক্ষা রোগ সম্পর্কে সচেতনতায় নবীগঞ্জে বাস-সিএনজি সংঘর্ষে জগন্নাথপুরের মহিলা নিহত কমলগঞ্জ উপজেলায় এই প্রথম নারী চেয়ারম্যান প্রার্থী গীতা রানীকানু

একটা নতুন জামার জন্য হাউমাউ কান্না সন্তানের, রোহিঙ্গা বাবা অসহায়

  • Update Time : শুক্রবার, ১৫ জুন, ২০১৮
  • ৩৯১ শেয়ার হয়েছে

আজকের স্বদেশ ডেস্ক::

আজ চাঁদ দেখা গেলে কাল ঈদুল ফিতর। এই ঈদুল ফিতর মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর । এবারই প্রথম বাংলাদেশের আশ্রয় কেন্দ্রে ঈদুল ফিতর উৎযাপন করবে সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা । কিন্তু ঈদের কোনো আমেজই নেই নিঃস্ব রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পগুলোতে।

গত বছরের ২৫ আগষ্টের পর উখিয়া ও টেকনাফের বাংলাদেশে আশ্রয় নেয় মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা সাত লাখ রোহিঙ্গা। এর আগে থেকে বসবাসকারী আরো তিন লক্ষাধিক রোহিঙ্গাসহ ১০ লাখ রোহিঙ্গা বসবাস এখন উখিয়া-টেকনাফে। বৃষ্টির কারণে বিশেষ করে নতুন অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গাদের জনজীবনে নেমে এসে বিপর্যয়। রাখাইনে মিয়ানমারের সেনা, বিজিপি ও রাখাইন উগ্রবাদীদের নির্যাতনের শিকার হয়ে এ দেশে পালিয়ে এসে এবার তাদের বেঁচে থাকার লড়াই প্রকৃতির বিরুদ্ধে। এর মধ্যে চলছে আসন্ন ঈদকে ঘিরে মুসলমানদের ঘরে ঘরে চলছে খুশির আমেজ । ঈদের কেনাকাটা, বাহারি খাবারের আয়োজন আর আত্মীয় বাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার প্রস্তুতি চলছে সবখানে। ঈদকে কেন্দ্র করে বাড়তি আনন্দের দুঃসাহস কোনো রোহিঙ্গারই নেই । থাকবেই বা কী করে যেখানে নুন পানি দিয়ে দু’মুঠো-দুবেলা খাওয়ার জোটে না সেখানে ঈদের আনন্দ যেন আমাবশ্যার চাঁদ।

তবে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া পুরনো রোহিঙ্গারা কিছুটা নির্ভার । তাদের জন্য নির্ধারিত ত্রাণে সংসার চলে । ফলে বাহ্যিক আয় করে উৎসবে আনন্দ ভাগাভাগি করার সামার্থ তাদের থাকে। কিন্তু নতুন করে আশ্রয় নেয়া সাত লক্ষাথিক রোহিঙ্গার সে সামর্থ নেই । মাথা গোঁজার ঠাঁই আর খাবার সংগ্রহের চিন্তায় যেখানে ব্যস্ত থাকতে হয়, সেখানে অবুঝ ছেলেমেয়েদের ঈদের জামা কিনে দেয়া আর দৈনন্দিন ডাল-ভাতের রুটিনের বাইরে সেমাই-পায়েশ রান্নার ব্যয় নির্বাহ কল্পনাতীত।

বালুখালি নতুন রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সরোয়ার আলম (৪৭) নামের একজন জানিয়েছেন, সন্তানেরা ঈদের জামা কেনার জন্য হাউমাউ করে কান্না করছে। কিন্তু আমি এমন অভাগা পিতা যে, তাদের মুথে একটু হাসি ফুটাতে ব্যর্থ।

কুতুপালং অনিবন্ধিত রোহিঙ্গা ক্যাম্পের জাফর আলম (৩৩) জানান, বিভিন্ন সংস্থা থেকে কিছু চাল, ডাল, তেল সহায়তা পেয়েছি । তা নিয়ে সংসার চলে। কিন্তু ঈদের জন্য কোন কিছু কেনার টাকা নেই । মেয়েটার পুরনো জামাটা ভাল করে ধুয়ে ঈদের দিন পরতে দেবো।
মধুরছড়া ১৭নং ক্যাম্পের আশ্রিত রোহিঙ্গা দিল মোহাম্মদ, শফিকুর রহমান জানান, গত ৫দিনের বৃষ্টিতে এখানকার রোহিঙ্গারা ঝুপড়ি থেকে বের হতে পারছে না। পানি বন্ধি অবস্থায় অনাহারে অনাধারে স্ত্রী,পুত্র-পরিবার-পরিজন নিয়ে দিন যাপন করতে হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত কয়ে ক’দিনের ভারী বর্ষণে এখানেদুই শতাধিক কাঁচা ঘর বিধ্বস্ত হয়েছে। মারা গেছে তিন বছরের এক শিশুসহ দুজন। ফলে ভয়াবহ প্রাকৃতিক দুর্যোগের আশঙ্কায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে রোহিঙ্গারা।

 

 

 

আজকের স্বদেশ/জুয়েল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2024
Design and developed By: Syl Service BD