1. abubakarpressjp@gmail.com : Md Abu bakar : Md Abubakar bakar
  2. sharuarpress@gmail.com : admin520 : Md Gulam sharuar
  3. : alamin328 :
  4. jewela471@gmail.com : Jewel Ahmed : Jewel Ahmed
  5. ajkershodesh@gmail.com : Mdg sharuar : Mdg sharuar
শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ১১:০০ পূর্বাহ্ন
হেড লাইন
১২৯০ টি ডাস্টবিন বিতরণ করেছে ওয়ার্ল্ডভিশন সুনামগঞ্জে আমির হোসেন রেজার প্রতি অনাস্থা জ্ঞাপন করলেন সুরমা ইউনিয়ন পরিষদের ১১ মেম্বার শান্তিগঞ্জে ব্যবসায়ীর ওপর দুর্বৃত্তের হামলা, টাকা-মোবাইল লুট কোম্পানীগঞ্জে সাংবাদিকদের সাথে নয়া ইউএনও’র মতবিনিময় সভা শান্তিগঞ্জে কোটা সংস্কার আন্দোলন ও হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বমেক কোম্পানীগঞ্জ সীমান্তে খাসিয়ার গুলিতে নিহত ২ বাংলাদেশীর লাশ হস্তান্তর কানাইঘাটে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে যুক্তরাজ্য প্রবাসী ফাহিমের ত্রান বিতরণ লন্ডনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তাহমিনার কৃতিত্ব জগন্নাথপুরে বন্যায় সড়কে বিভিন্ন স্থানে ভাঙ্গন মানুষের ভোগান্তি! সাংবাদিক ওমর ফারুক নাঈমকে হুমকি, থানায় জিডি

টার্কি পালনে ভাগ্য ফিরেছে কামালের

  • Update Time : শুক্রবার, ২৭ এপ্রিল, ২০১৮
  • ১০৬৩ শেয়ার হয়েছে

আজকের স্বদেশ ডেস্ক::

নোয়াখালীর সেনবাগে টার্কি পাখি পালন করে তাক লাগিয়ে দিয়েছে সৌদি প্রবাসী কামাল হোসেন ভূঁইয়া (৪০)।২০১৬ সালে জীবিকার সন্ধানে আমেরিকা গিয়ে ওয়াশিংটনে দেখতে পান টার্কি পাখির খামার। সেখানে থেকে তিনি টার্কি পাখি পতি-পালনে আগ্রহী হয়ে ওঠেন।

২০১৭ সালে তিনি ভারতের মাদ্রাজ থেকে ২ লাখ টাকা দিয়ে ২০০ পিস টম ও হ্যান্ড জাতের পুরুষ ও নারী টার্কি পাখি সংগ্রহ করেন। সেনবাগ উপজেলার ৫নং অজুর্নতলা ইউনিয়নের উত্তর মানিকপুর গ্রামে খামার গড়ে তোলেন।

বর্তমানে তার টার্কি খামারে ২ হাজার পিস টার্কি পাখি রয়েছে। ওই টার্কি খামার থেকে বর্তমানে প্রতিদিন গড়ে ২শ পিস ডিম পাওয়া যাচ্ছে। ওই ডিম থেকে তিনি বাচ্চাও উৎপাদন করছেন।

বাচ্চা ও টার্কি পাখি বিক্রি করে বেশ আয়-রোজগার করছেন, স্বাবলম্বী হয়েছেন। তার খামার থেকে বাচ্চা নিয়ে ইতোমধ্যে ১০/১২টি খামার গড়ে তুলেছেন সেনবাগসহ আশেপাশের শিক্ষিত ও অর্ধশিক্ষিত বেকার যুবক ও যুবতীরাদ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সরেজমিনে টার্কি খামার পরিদর্শনে গেলে সৌদি প্রবাসী কামাল উদ্দিন ভূঁইয়া জানান, তিনি ১৫ থেকে ৩০ দিনের বাচ্চা বিক্রি করেন ৭ শ’ টাকা ও ২ মাসের প্রতিটি বাচ্চা বিক্রি করেন ২৫ শ’ টাকা। অপরদিকে মাংসের প্রতিকেজি টার্কি তিনি বিক্রি করেন ৬শ’ থেকে ৭ শ’ টাকায়। প্রতিটি টার্কি ৮ থেকে ২৮ কেজি পর্যন্ত ওজন হয়।

টার্কির ক্রেতা ঢাকা ও চট্টগ্রামের অভিজাত হোটেল-রেস্তোরাঁ। ঢাকা থেকে ক্রেতারা গাড়ি নিয়ে এসে টার্কি পাখিগুলো নিয়ে যায়। এই পাখিগুলো প্রতিপালন একেবারে সহজ। বালু ভর্তি ফ্লোরে থাকতে অভ্যস্ত। খাদ্য হচ্ছে- সবুজ ঘাস ও লতাপাতা এবং পোল্ট্রি ফিড। একটি প্রাপ্তবয়স্ক পাখি প্রতিদিন একশ গ্রাম খাদ্য খায়। এর মধ্যে সবুজ ঘাস ৮০ ভাগ।

তিনি আরো জানান, গ্রামের মা-বোন ও শিক্ষিত-অশিক্ষিত বেকার যুবকরা এই পাখি পালন করে সহজেই সাবলম্বী হতে পারে। ১ জোড়া বাচ্চা টার্কির মুল্য ১৪ শ’ টাকা। ৩ মাসে ওই বাচ্চা পাখিটির ওজন ৩ কেজি হলে পাখিটির মূল্য দাঁড়াবে ৭ শ টাকা দরে ২১ শ’ টাকা, ৬ মাসে প্রতিকেজি টার্কি ৫ হাজার ৬শত টাকা। এছাড়াও প্রতিটি টার্কি ৬ মাস বয়স থেকে ডিম দেয়া শুরু করে যা টানা ৬ মাস পর্যন্ত ১৮০টি ডিম দেয়। প্রতিটি ডিমের মূল্য ২ শ’ টাকা।

তিনি আরো জানান, টার্কি খামারিদের নিকট থেকে তিনি পাখিগুলো ক্রয় করে বিক্রির ব্যবস্থা করেন। ডিমগুলো মেশিনে ফুটিয়ে খামারিদের বিনামূল্যে সরবরাহ করেন।

 

 

 

আজকের স্বদেশ/জুয়েল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2024
Design and developed By: Syl Service BD