1. abubakarpressjp@gmail.com : Md Abu bakar : Md Abubakar bakar
  2. sharuarpress@gmail.com : admin520 : Md Gulam sharuar
  3. : alamin328 :
  4. jewela471@gmail.com : Jewel Ahmed : Jewel Ahmed
  5. ajkershodesh@gmail.com : Mdg sharuar : Mdg sharuar
রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ০৪:৩২ পূর্বাহ্ন
হেড লাইন
রানীগঞ্জ উন্নয়ন সংস্থা’র আজীবন দাতা সদস্যদের সম্মাননা স্মারক প্রদান মৌলভীবাজার কুলাউড়ায় ৫ টি প্রতিষ্ঠানকে ১৩ হাজার টাকা জরিমানা জগন্নাথপুরে বন্যায় পানিবাহিত রোগের প্রকোপ বাড়ছে স্বপ্নের ঢেউ সমাজ কল্যান সংস্থার নবগঠিত কমিটির পরিচিতি সভা অনুষ্টিত সুনামগঞ্জে বস্তা ভর্তি ত্রাণ পেয়ে খুশি সবাই মদ্যপান অবস্থায় গ্রেফতারের পর সাজা ভোগ প্রধান শিক্ষকের, সমালোচনা ঝড় ধলাই নদীর উৎসমুখ খনন ও সনাতন পদ্ধতিতে পাথর উত্তোলনের দাবি সুনামগঞ্জে বন্যায় সড়ক ক্ষতিগ্রস্ত বেশি, দুর্ভোগ চরমে কোম্পানীগঞ্জে দুই প্রবাসীকে সংবর্ধনা এইচ এস সি ২০২৪ এর বিদায় ও রেটিন ২য় মেধা বৃওি পরীক্ষার পুরস্কার বিতরণী

কোটা সংস্কার আন্দোলনের ৩ নেতাকে ধরে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ

  • Update Time : সোমবার, ১৬ এপ্রিল, ২০১৮
  • ৪৩৭ শেয়ার হয়েছে

আজকের স্বদেশ ডেস্ক::

কোটা সংস্কার আন্দোলনের সাথে সংশ্লিষ্ট নেতৃবৃন্দ বলছেন, তাদের তিনজন সহকর্মীকে সাদা পোশাকের পুলিশ জোর করে তুলে নিয়ে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। ঘন্টাখানেক পর অবশ্য তাদেরকে ছেড়ে দিয়েছে।

পুলিশের কোনো বক্তব্য এখনো পাওয়া যায়নি। খবর বিবিসির।

সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ নামে যে সংগঠনটি এই আন্দোলনের নেতৃত্বে রয়েছে তার আহবায়ক হাসান আল মামুন বিবিসিকে বলেন, বেলা দেড়টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলে হাসপাতালের সামনে থেকে জবরদস্তি করে গাড়িতে তাদের তুলে নিয়ে যাওয়া হয়।

এই তিনজন – রাশেদ খান, ফারুক হাসান এবং নুরুল্লা নূর। এরা তিনজনই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র।

ছাড়া পাওয়ার পর ফিরে এসে তারা জানান, গাড়িতে উঠিয়ে চোখ বেঁধে তাদের গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ে নিয়ে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

মি. মামুন জানান, সকাল ১১টার সময় তারা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় লাইব্রেরির সামনে তারা যখন একটি সংবাদ সম্মেলন করছিলেন তখন থেকেই সাদা পোশাকের পুলিশ নজরদারি করছিল।

সংবাদ সম্মেলনের পর আন্দোলনের এই তিন নেতা এবং ক’জন কর্মী গত সপ্তাহের বিক্ষোভে আহতদের দেখতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের দিকে রওয়ানা হন।

হাসান আল মামুন বিবিসিকে বলেছেন, তারা এখন সাবধানে চলাফেরা করছেন।

ওদিকে, কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনের সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে অজ্ঞাত সংখ্যক লোকজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ।

পুলিশ বলছে, এজন্যে তারা প্রাথমিকভাবে সামাজিক মাধ্যমের ৩০টি অ্যাকাউন্ট তারা তদন্ত করছেন।

পুলিশের কর্মকর্তারা বলছেন, মৃত্যু ও রগ কাটার মতো মিথ্যা তথ্য প্রচার করে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে যারা সহিংস করে তুলেছে তাদেরকে খুঁজে বের করার কাজ চলছে। এই অ্যাকাউন্টগুলো পর্যালোচনা করে তারা এখন উসকানিমূলক তথ্য প্রচারকারী ও গুজব রটনাকারীদের খুঁজে বের করবেন।

সোমবার সকালে সংবাদ সম্মেলনে কোটা আন্দোলনের নেতৃবৃন্দ অভিযোগ করেন, তাদের অনেকের রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা নিয়ে নানা বিভ্রান্তিকর খবর ছড়ানো হচ্ছে।

 

 

আজকের স্বদেশ/জুয়েল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2024
Design and developed By: Syl Service BD