Logo

September 18, 2019, 5:44 am

সংবাদ শিরোনাম :

জগন্নাথপুরে দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত ৫০

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি::
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে রানীগঞ্জ ইউনিয়নে গন্ধর্ব্বপুর গ্রামে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে। দুপক্ষের সংঘর্ষে অন্তত ৫০ জন আহত হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। আজ বুধবার সকালে গন্ধর্ব্বপুর গ্রামের জামে মসজিদের পাশে ঘটনাটি ঘটে। গন্ধর্ব্বপুর গ্রামের গোলাপ মিয়া ও একই গ্রামের রুয়েল মিয়ার পক্ষের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষে ঘটনায় অন্তত ৫০ জন আহত হয়েছে।

 

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়,গত কাল সোমবার রাত্রে উভয় পক্ষের লোকজন কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে।এতে ২জন আহত হয়। সংঘর্ষের পর আজ বুধবার সকাল ৭টায় মৃত মহরম উল্লাহ ছেলে মো.রুয়েল মিয়ার বাড়ীতে সালিশ বৈঠকে বসে আলোচনা চলছিল। ৮টার দিকে গোলাপ মিয়ার লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়।হামলা থেকে বাচঁতে মো.রুয়েল মিয়ার লোকজন আত্নরক্ষার জন্য মোকাবেলা করার সময় উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে ঘন্টা ব্যাপি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।এতে উভয় পক্ষের অন্তত ৫০ জন আহত হয়েছে।

গোলাপ মিয়ার পক্ষের মৃত.কুরবান উল্লাহর ছেলে আব্দুল আমিন(৪০),মৃত তারিফ উল্লাহ ছেলে জোনাব উল্লাহ(৭১),জোনাব উল্লাহ ছেলে মঈন উদ্দিন (২০),সামস উদ্দিন (২২),মহিম উদ্দিন(২৪),গোলাপ মিয়ার ছেলে জুবাইন (১৮),নুর মোহাম্মাদের ছেলে ইকবাল হোসেন (২২), মো.ছইল মিয়ার ছেলে রবিউল (২০),মৃত ফজর আলীর ছেলে মো.মজনু মিয়া (৩৮),মৃত রফিক উল্লাহর ছেলে মনতসির  আলী (৩৮),ছত্তার উল্লাহ ছেলে আছির উদ্দিন (৪৫)।এদের মধ্যে আব্দুল আমিন, জোনাব উল্লাহ, মঈন উদ্দিন, সামস উদ্দিনকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।

 

অপর দিকে রুয়েল পক্ষের  তেরাব উল্লাহর ছেলে রুনু মিয়া (২৫), সাহেল মিয়া (১৪),মৃত ওয়াহাব উল্লাহর ছেলে জুমেল মিয়া (১৫),রুকুম উল্লাহর ছেলে লায়েক মিয়া (১৮),তাজ উল্লাহর ছেলে ফজলু মিয়া (৩৬),মৃত মহরম উল্লাহর ছেলে ফুল মিয়া (৪০),শায়েস্তা মিয়ার ছেলে শাহআলম (২২), শিপন মিয়া (২৬),নুর আলম (২০),মকবুল হোসেনের ছেলে কদ্দুছ মিয়া (৪০), ফজর আলীর ছেলে রিপন মিয়া (২০), মৃত ওয়াদ উল্লাহ ছেলে রুকুম উল্লাহ, মৃত.কলমদর উল্লাহর ছেলে উকিল আলী (৪৫),লাল মিয়ার ছেলে মো.সোহাগ মিয়া (১৮),মৃত মহরম উল্লাহর ছেলে রুহেল মিয়া (৩০),মৃত নিধান উল্লাহর ছেলে আফছর মিয়া (৩৬), তেরাব আলীর ছেলে জুনেদ মিয়া (১৬),নুর মিয়ার ছেলে নোমান মিয়া (২২),মৃত ওরছত উল্লাহর ছেলে এনাম মিয়া (৩৮), মৃত নোয়াজ উল্লাহর ছেলে ফুলকাছ মিয়া (৪৪) সহ প্রায় অর্ধশতক লোক আহত হয়েছে।

 

 

এদের মধ্যে রুনু মিয়া, জুমেল মিয়া, লায়েক মিয়া, শিপন মিয়া,নুর আলম কে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।আহতদের মধ্যে ৬ জন কে জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

 

 

খবর পেয়ে জগন্নাথপুর থানার এসআই লুৎফুর রহমান ও এসআই কবির উদ্দিনের নেতৃত্বে এসআই অনুজ দেব,মো.সবুজ মিয়া,এএসআই আবুল হোসেন, তপন দেব,অরুন সিনহা,শাহিন চৌধুরী, আফসর আহমদ সহ একদল পুলিশ ঘটনা স্থানে এসে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি শান্ত করে

 

 

 

এ ব্যাপারে জগন্নাথপুর থানার অফিসার ইনর্চাজ হারুনুর রশীদ চৌধুরী জানান, সংঘর্ষের সময় জগন্নাথপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।উভয় পক্ষের লোকজনের মধ্যে সমঝতার চেষ্টা চলছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। এখন পর্যন্ত কোন পক্ষে মামলা করে নাই।

 

 

 

আজকের স্বদেশ/জিএস/জুয়েল