1. abubakarpressjp@gmail.com : Md Abu bakar : Md Abubakar bakar
  2. sharuarpress@gmail.com : admin520 : Md Gulam sharuar
  3. : alamin328 :
  4. jewela471@gmail.com : Jewel Ahmed : Jewel Ahmed
  5. ajkershodesh@gmail.com : Mdg sharuar : Mdg sharuar
মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ০১:০৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের নতুন কমিটি অনুমোদন হওয়ায় আনন্দ মিছিল বিএমএসএস সিলেট বিভাগীয় সম্মেলন সম্পন্ন বিভাগীয় কমিটি ঘোষণা জগন্নাথপুরে অজু করতে গিয়ে পানি ডুবে তরুণের মৃত্যু নবীগঞ্জের ঘোলডুবা এম.সি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে প্রাণনাশের হুমকি দিলেন সাবেক সভাপতি সাজ্জাদুর রহমান চৌধুরী-থানায় জিডি !!  জগন্নাথপুরে দুই রেস্টুরেন্টকে অর্থদণ্ড ৬ ডিসেম্বর বাউল কামাল পাশার ১২১তম জন্মবার্ষিকী কানাইঘাট সদর ইউপি চেয়ারম্যান আফসর রোটারী ক্লাব অব সিলেট সেন্ট্রালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত জগন্নাথপুরে আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন কর্মশালা অনুষ্টিত কানাইঘাটে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ এবং বিজ্ঞান মেলা সম্পন্ন গুজব ছড়িয়েছিল ব্যাংকে টাকা নাই- সুনামগঞ্জে পরিকল্পনা মন্ত্রী

বিশ্বম্ভরপুরে ১১ গ্রামে কালবৈশাখী ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি, চার শতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত

  • আপডেটের সময় : শনিবার, ৩১ মার্চ, ২০১৮
  • ৫৩৫ বার নিউজটি শেয়ার হয়েছে

নিজস্ব প্রতিনিধি::

অতো বড়বড় ফাত্তর আমরার টিনের চালও পড়ছে। মনে অইছে জেন কেউ বন্দুক দিয়া চালের উপর গুলি করতাছে এভাবেই দূর্গাপুর গ্রামের মোছাঃ মাহমুদা আক্তার শিলাবৃষ্টির কথা বলছিলেন। একই গ্রামের পরীমনি বলেন, ফাত্তর পইরা ঘর ছিদ্রি অইগেছে থাকবার মতো কোন জয়াগা নাই। হিল পইরা নয়া টিনের চাল ফেরফের অইগেছে। পোলাপানরে লইয়া কোন রকম জান বাঁচাইছি।

 

দূর্গাপুর গ্রামের মহিবুর রহমান বলেন, এমন টিকে হিল পড়ছে খালি টাসটাস শব্দ হুনাগেছে। কানে কপালে ঠিয়া লাইগা গেছে। এইরকম হিল পড়া তিনি জীবনেও দেখেনি। গতকাল শুক্রবার বিকেলে সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার ভাটিপাড়া, বাগময়না, চিতলাহাটি, দূর্গাপুর, জগন্নাথপুর, কিত্তারহাটি, ললিয়াপুর, মানিকটিলা, ওমরপুর, বসন্তপুর, উলাসনগরসহ ১১টি গ্রামে শিলা বৃষ্টিতে চার শতাধিক বসতঘরের চাল বিধ্বস্থ হয়েছে। ফলে এসব গ্রামের দুই হাজার মানুষ পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতর দিনযাপন করছেন। উপজেলার দক্ষিণ বাদাঘাট ইউনিয়নের ১১ টি গ্রামের উপর দিয়ে প্রচন্ড ঝড়োবাতাস সহ কালবৈশাখী ঝড় বয়ে যায়। ত্রিশ মিনিটের শিলাবৃষ্টির কারনে এসব গ্রামের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

 

শিলাবৃষ্টিতে চার শতাধিক বসতঘরের চাল ছিদ্র হয়ে গেছে। উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস সুত্রে জানাযায়, দক্ষিণ বাদাঘাট ইউনিয়নের দেড়শ ঘর শিলাবৃষ্টিতে পুরোপুরো বিধ্বস্থ হয়। এছাড়া আড়াইশো ঘর আংশিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগন ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করে প্রয়োজনীয় সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোন সাহায্য সহযোগিতা তারা পাননি। দক্ষিণ বাদাঘাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এরশাদ মিয়া বলেন, শিলাবৃষ্টিতে তার ইউনিয়নের ১১ টি গ্রামের আট শতাধিক বসত ঘর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগন ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করেছেন। কিন্তু এখানো কোন সাহায্য সামগ্রী ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে বিতরণ করা হয়নি। তিনি মানুষের গৃহ নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় সহযেগিতা কামনা করেন।

 

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ মানিক মিয়া বলেন, ক্ষতিগ্রস্থদের তালিকা তৈরী করে প্রয়োজনীয় সহযোগিতা করা হবে। বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সমীর বিশ্বাস বলেন, কাল বৈশাখী ঝড়ে ও শিলাবৃষ্টিতে উপজেলার সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে দক্ষিণ বাদাঘাট ইউনিয়নের ১১ টি গ্রামে। ক্ষতিগ্রস্ত গ্রামগুলো জেলা ও উপজেলা প্রশাসনে উর্ধ্বতন কর্মকতাগন পরিদর্শন করেছেন। তাদের পুর্নবাসনে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পত্র প্রেরণ করা হয়েছে। এছাড়া প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদেরকে সহযোগিতা করা হবে।

 

 

আজকের স্বদেশ/জুয়েল

পোস্টটি আপনার সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই ধরনের আরো সংবাদ দেখুন
© All rights reserved © 2022 আজকের স্বদেশ
Design and developed By: Syl Service BD