Logo

January 24, 2020, 11:51 am

সংবাদ শিরোনাম :
«» বিএনপি ফেয়ার ইলেকশন চায় না : আইনমন্ত্রী «» ব্যাটিং উইকেটে বাংলাদেশ থামল মাত্র ১৪১ রানে «» তাহিরপুরে ৬৯লক্ষ টাকার ব্যয়ে নির্মিত ছিন্নমূল ৪০ পরিবারের আবাসনের কাজ এগিয়ে চলছে «» জিতেই চলেছে লিভারপুল «» সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্বপালনের ফলে ডিআইজি প্রিজন হিসাবে পদোন্নতি পেলেন জাহাঙ্গীর কবির «» ইউনাইটেড সোশ্যাল অর্গানাইজেশন কানাইঘাটের উদ্যোগে শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ «» ২০২০হবিবপুর ফুটবল টুর্নামেন্টে ইকড়ছইকে হারিয়ে ফাইনালে আরাফাত রহমান কোকো স্পোটিং ক্লাব গ্রীস «» কানাইঘাটে শিক্ষা সম্মেলনে আহমদ আল কবির: শিক্ষার উন্নয়নে সরকারের পাশাপাশি সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে «» ছাতকে আল-মদিনা একাডেমী ও মহিলা মাদ্রাসায় ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধন «» মৌলভীবাজার সদর উপজেলা, কলেজ ও পৌর ছাত্রদলের সাথে কেন্দ্রীয় নেতাকর্মীর মতবিনিময়

দুর্নীতির শিকড়ে বাধা জগন্নাথপুর

জগন্নাথপুর প্রতিনিদি ঃ জগন্নাথপুর কয়েক কোটি টাকা ব্যয়ে ডুবো রাস্তা নির্মাণ কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে পুরাতন ও নিম্ন মাণের রড। ঘটনাটি ঘটেছে জগন্নাথপুর উপজেলার  মাগুড়া এলাকায়। তাড়াশ এলজিইডি অফিস থেকে ওই রাস্তার কাজ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে ম্যানেজ করে ওই কাজের ঠিকাদার সরকারি নিয়মনীতি উপেক্ষা করে উক্ত রাস্তা নির্মাণ কাজে পুরাতন ও নিম্ন মাণের রড ব্যবহার করছেন। শুধু রড নয়, তাড়াশ-নাদোসৈয়দপুর রাস্তা নির্মাণ কাজে অন্যান্য জিনিসও নিম্ন মানের ব্যবহার করা হচ্ছে। এ ঘটনাগুলো নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। কিন্তু এগুলো দেখার কেউ নেই।

জগন্নাথপুর  উপজেলায় ২৪টি কালভার্ট ও সেতু নির্মাণে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া গেছে ঠিকাদারের ও উপজেলা চেয়ারম্যান এর বিরুদ্ধে।নেতা কর্মীদের সহযোগীতায় দরপত্রে উল্লেখিত নির্দেশনা না মেনে ঠিকাদাররা নিজের খেয়াল-খুশি মত নির্মাণ কাজ করছেন।

প্রকল্প সংশ্লিষ্টদের মোটা অঙ্কের কমিশনের মাধ্যমে ম্যানেজ করেই ওই ঠিকাদাররা সেতু নির্মাণে

অনিয়ম করছে বলে ঢের অভিযোগ রয়েছে।খোঁজ-খবর নিয়ে জানা গেছে- উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ২৪টি বক্স কালভার্ট এবং সেতু নির্মাণের বছরে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর প্রায় ৬ কোটি ১ লাখ ৪৬ হাজার ৬শ বরাদ্দ দেয়। নিয়ম রয়েছে কালভার্টের বেইজের নিচে শাল, গজারি অথবা সুন্দরী কাঠ দিয়ে ১০ ফুট গভীর পাইল করতে হবে।ঢালাইয়ের সময় যাতে কংক্রিট মিশ্রনের মধ্যে বাতাস ঢুকে না যায় তার জন্য ব্যবহার করতে হবে ভাইব্রেটর মেশিন। বেইজ নির্মাণে ২ স্তরে রড বাঁধতে হবে।সেতুগুলোর উচ্চতা ২০ ফুট থাকতে হবে। রড দিয়ে বাঁধা জালগুলো নির্দিষ্ট মাপ অনুসরণ করতে হবে। কিন্তু এসবের কিছুই মানছেন কাজের সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানগুলো।’’

খোঁজ নিয়ে জানা যায় সকল অনিয়মের পিচনে উপজেলা চেয়াম্যান ও নেতা বৃন্ধোর হাত রয়েছে। যার কারণে কোন ধরনের উপযোক্ত ব্যাবস্থা নেয়া সম্ভব হচ্ছেনা।